১৫ মে ২০১৯

শরণখোলায় মামলার জালে বন্দী বিদ্যুত সংযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ॥ শরণখোলা উপজেলার সদর রায়েন্দা থেকে মাত্র আধা কিলোমিটার দূরে উত্তর কদমতলা গ্রাম। আশপাশের সবখানেই বিদ্যুতের আলোয় ঝলমল করছে। অথচ উত্তর কদমতলা গ্রামের ৩০টি শ্রমজীবী পরিবারের কাছে আজও বিদ্যুতের আলো পে৭ৗছেনি। ফলে প্রধানমন্ত্রীর ঘরে ঘরে বিদ্যুত পৌঁছে দেয়ার সুবিধা থেকে এ পরিবারগুলো বঞ্চিত হচ্ছে। রবিবার দুপুরে ভুক্তভোগী পরিবারের অর্ধশত নারী-পুরুষ শরণখোলা উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে বিদ্যুতের দাবি জানান। এ সময় পল্লী বিদ্যুত কর্তৃপক্ষের লোকজনও উপস্থিত ছিলেন।

শরণখোলা পল্লী বিদ্যুতের এরিয়া অফিস জানায়, গ্রাহকদের আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রায় তিন বছর আগে ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে সেখানে খুঁটি বসানো এবং তার টানা হয়েছে। শুধু সংযোগ দেয়া বাকি। এমন সময় আবেদনকারীদের মধ্য থেকে সোবাহন হাওলাদারসহ কয়েকজন তাদের জমির ওপর থেকে খুঁটি ও লাইন টানার অভিযোগে ২০১৮ সালের ১৮ ও ১৯ মার্চ আদালতে দুটি মামলা দায়ের করেন।

ফলে, বিদ্যুতের সংযোগ দেয়া বন্ধ হয়ে যায়। বিদ্যুত বঞ্চিতদের পক্ষ থেকে আমীর আলী ফকির, আলী মিয়া তালুকদার, জাহানারা বেগম ও রাবেয়া বেগম বলেন, আমরা শহরের পাশে বাস করেও আজ পর্যন্ত বিদ্যুত পাইনি। অনেক চেষ্টা করে লাইন আনা হয়েছে, কিন্তু মামলাবাজ একটি পরিবারের কারণে আমাদের এত পরিবারকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

শরণখোলা পল্লী বিদ্যুতের আঞ্চলিক অফিসের এজিএম আবু সাইদ খায়রুল আলম বলেন, সবার মতামত নিয়েই তখন খুঁটি, তার বসানো হয়। যারা মামলা করেছেন তারাও বিদ্যুতের আবেদনকারী। অথচ এখন তারা বলছেন তাদের বাড়ির ওপর থেকে লাইন নিতে দেবেন না। মামলা নিষ্পত্তি বা উভয়পক্ষ সমঝোতা না হলে সংযোগ দেয়া যাচ্ছে না।

শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামালউদ্দিন আকন বলেন, এ ব্যাপারে উভয়পক্ষ নিয়ে বসে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে।