২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গ্রীন কার্ডের আদলে সৌদিতে স্থায়ী বসবাসের সুযোগ দেয়া হচ্ছে

সৌদি শূরা কাউন্সিল বুধবার ধনী বিদেশী ও দক্ষ কর্মীদের জন্য একটি নতুন বাসস্থান প্রকল্পের পক্ষে ভোট দিয়েছে। মঙ্গলবার মন্ত্রিসভা ওই প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে। খবর আরব নিউজের

সরকার যদি এটি অনুমোদন ও বাস্তবায়ন করে তাহলে এটি বর্তমান ব্যবস্থার অনেক জটিলতা এবং আমলাতান্ত্রিক ও বিধিনিষেধযুক্ত অনেক সমস্যার সমাধান করতে সক্ষম। যুক্তরাষ্ট্রের গ্রীন কার্ডের আদলে এই বিশেষ ব্যবস্থাটি চালু করতে যাচ্ছে সৌদি আরব। নতুন এই আবাসিক প্রকল্প- আনুষ্ঠানিকভাবে প্রিভিলেজ ইকামা নামে পরিচিত এবং সাধারণভাবে সৌদি আরবের গ্রীন কার্ড হিসেবে পরিচিত হবে। প্রায় তিন বছর আগে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান এই প্রকল্পটি চালুর কথা জানিয়েছিলেন। সৌদিতে বসবাস, কাজ ও নিজের ব্যবসা এবং সম্পত্তির জন্য প্রয়োজনীয় ফি দিয়ে নাগরিকত্ব পাবেন বিদেশীরা। যারা যোগ্য হবেন তারা বার্ষিক নবায়নযোগ্য বিকল্প ও স্থায়ী বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে পারবেন। সরকারী কর্মকর্তারা আরব নিউজকে বলেছেন, প্রকল্পটি এখন বাদশাহ সালমানের স্বাক্ষরের মাধ্যমে কার্যকরী করা হবে। নতুন এই প্রকল্পে সৌদিদের জন্যও সমান অধিকার বহন করবে। ব্যতিক্রম হবে নাগরিকত্ব। এর সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবা ও স্কুলে বিশেষ সুযোগ পাওয়ার ব্যবস্থা থাকবে। সৌদি গ্যাজেট জানিয়েছে, জনস্বার্থে ভিসা প্রাপ্তি, গৃহকর্মী নিয়োগ, সম্পত্তির মালিকানা ও অর্থের মাধ্যমসহ ব্যক্তিরা স্থায়ী অথবা অস্থায়ী বাসস্থানের জন্য ভিসা পেতে সক্ষম হবেন। অন্য সুবিধাগুলোর মধ্যে ব্যবসার জন্য যে কোন সময় সৌদি আরবে যাওয়া এবং দেশ ছাড়ার স্বাধীনতা থাকবে। নতুন বাসস্থান ভিসা এক বছরের জন্য অথবা সীমাহীন সময়ের জন্য জারি করা যাবে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, এই ব্যবস্থায় মোটা অঙ্কের অর্থ ফি দিয়ে সৌদি আরবে স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি পাওয়া যাবে। পাশাপাশি সেখানে ব্যবসা করা এবং সম্পত্তির মালিক হওয়ারও সুযোগ হবে। আরবের তেলসমৃদ্ধ দেশ সৌদিতে বর্তমানে স্পন্সরশিপভিত্তিক যে ব্যবস্থা চালু আছে তাতে একজন সৌদি চাকরিদাতা স্পন্সর হতে রাজি হলে তবেই সৌদি আরবে ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে বসবাসের সুযোগ হয়। এ ব্যবস্থার আওতায় প্রায় এক কোটি বিদেশী সৌদি আরবে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত রয়েছেন।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া