১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চট্টগ্রামে কিশোর গ্যাংয়ের ৮ সদস্য গ্রেফতার

  • হত্যারহস্য ফাঁস

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে কিশোর অপরাধীদের একটি গ্যাংকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ইয়াবা ব্যবসায় সহায়তা থেকে শুরু করে এক রিক্সাচালককে কুপিয়ে হত্যার মতো অভিযোগ পাওয়া গেছে তাদের বিরুদ্ধে। ডবলমুরিং থানা পুলিশের অভিযানে বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত ৭ কিশোর অপরাধী ও হত্যার নির্দেশদাতার স্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তাদের কাছ থেকে তিনটি ধারালো অস্ত্র ও একটি চীনা কুড়াল উদ্ধার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের ইতোমধ্যে আদালতের মাধ্যমে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, ইয়াবা ও অস্ত্র মামলায় গ্রেফতার হওয়া ছগির জেলখানা থেকে তার সহযোগী মফিজকে হত্যার নির্দেশ দেয়। কিন্তু এই কিশোর গ্যাং মাত্র এক হাজার টাকার বিনিময়ে ভুলবশত ওই রিক্সাচালককে রাতের আঁধারে খুন করে। পুলিশের উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়া সদস্যদের তথ্য অনুযায়ী, গত ১৪ মে ভোর ৪টা থেকে সাড়ে ৫টার মধ্যে ডবলমুরিং মডেল থানাধীন হাজীপাড়া ওমরআলী বাড়ির সোহেল কলোনীতে হত্যাকা-ের ঘটনা ঘটে। সেখানে সগীরের সহযোগী মফিজ ও রিক্সাচালক ভাড়াটিয়া রাজু আহম্মদ পাশাপাশি কক্ষে থাকত। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত সগীরের কিশোর গ্যাং রিক্সাচালক রাজুকে (২০) ধারাল অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত করে। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়েলিটি বিভাগে ভর্তি করা হয়। তবে মৃত্যুকালে জবানবন্দীতে রাজু পুলিশকে জানিয়েছে, এলাকার ইয়াবা ব্যবসায়ী সগিরের লোকজন তাকে মফিজ ভেবে ধারাল অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। ওই দিন সকাল সোয়া সাতটায় রাজুর মৃত্যু ঘটে। পুলিশ মৃতদেহের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুতপূর্বক প্রাথমিক তদন্ত শেষে অজ্ঞাতনামা দুষ্কৃতকারীদের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। এ ঘটনায় শিমুল দাশ, তানভির হোসেন পকাশ সিফাত, সুজন পকাশ মধু, রাকিব হোসেন প্রকাশ শাহ রাকিব, নুর নবী, মেহেদী হাসান রুবেল, সগীরের ছেলে ওসমান হায়দার কিরন, ও সগীরের স্ত্রী সেলিনা আক্তার সেলীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।