২১ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বুদ্ধপূর্ণিমার দিন রাজধানীতে জঙ্গী হামলার আশঙ্কা

  • আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বুদ্ধপূর্ণিমার দিনে রাজধানী জঙ্গী হামলার আশঙ্কায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ সদর দফতর। প্রায় এক সপ্তাহ আগেই বুদ্ধপূর্ণিমার উৎসবটিতে বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গে জঙ্গী হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে ভারতের অভ্যন্তরীণ কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো (আইবি)। পুলিশ সদর দফতরে বুধবার বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) কার্যনির্বাহী কমিটির সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর জঙ্গী হামলা করতে পারে এমন আশঙ্কা ব্যাক্ত করে বক্তব্য দিয়েছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। এরপরই আগামীকাল শনিবার অনুষ্ঠিতব্য বুদ্ধপূর্ণিমার উৎসবটিতে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পুলিশ সদর দফতর সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে পুলিশ সদর দফতরে বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা সংক্রান্ত এক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব ‘বুদ্ধপূর্ণিমা’ নির্বিঘ্নে উৎসাহ-উদ্দীপনার মাধ্যমে উদযাপনের জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আগামী ১৮ মে বুদ্ধপূর্ণিমা উদযাপিত হবে।

সভায় আইজিপি বলেছেন, বুদ্ধপূর্ণিমার নিরাপত্তা নিয়ে সুনির্দিষ্ট কোন শঙ্কা নেই। নিচ্ছদ্রি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সারা দেশের বৌদ্ধ মন্দিরগুলোতে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বুদ্ধপূর্ণিমাকে ঘিরে কোন গোষ্ঠী বা মহল যাতে কোন ধরনের গুজব বা বিভ্রান্তি ছড়াতে না পারে সেজন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসমূহ সর্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বুদ্ধপূর্ণিমাকে সামনে রেখে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেকপোস্ট স্থাপন এবং ব্লক রেইডের ব্যবস্থা করতে পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন আইজিপি। কমিউনিটি পুলিশ সদস্য, স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী ও বৌদ্ধধর্মীয় নেতৃবৃন্দের সহায়তা নিয়ে বৌদ্ধ মন্দিরগুলোতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশের সকল ইউনিটকে আহ্বান জানান আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারী। বৈঠকে নিরাপত্তার স্বার্থে ব্যাগ, পার্স, ভ্যানিটি ব্যাগ ইত্যাদি সঙ্গে না আনার জন্য পুণ্যার্থীদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। সভায় উপস্থিত বৌদ্ধধর্মীয় নেতারা বুদ্ধপূর্ণিমাকে ঘিরে নেয়া সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থায় সন্তোষ প্রকাশ করা হয়।

পুলিশ সদর দফতরের এক কর্মকর্তা বলেন, গত ২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডেতে জঙ্গী হামলায় আড়াই শতাধিক মানুষ নিহত ও ৫ শতাধিক আহত হওয়ার ঘটনা ঘটার অন্তত দশ দিন আগেই শ্রীলঙ্কায় জঙ্গী হামলার আশঙ্কার কথা সেদেশকে সতর্ক করে দিয়েছিল ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা। এখন আবার এক সপ্তাহ আগে ১৮ মে আসন্ন বুদ্ধপূর্ণিমার উৎসবটিতে বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গে জঙ্গী হামলার আশঙ্কা রয়েছে বলে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থার দাবি। ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার এমন দাবির মধ্যেই পুলিশের আইজি ড. জাবেদ পাটোয়ারীর বক্তৃতায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর জঙ্গী হামলার আশঙ্কার কথা মাথায় রেখেই বুদ্ধপূর্ণিমার নিরাপত্তা জোরদার ও গোয়েন্দা নজরদারি হচ্ছে। আসন্ন বুদ্ধপূর্ণিমায় পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশে জঙ্গী হামলা হতে পারে; ভারতীয় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে দেশটির গণমাধ্যমে এমন সংবাদ প্রচারের পর, দেশের মসজিদ, মন্দির, চার্চ ও বৌদ্ধ উপাসনালয়ে বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা। পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে হামলার হুমকি না থাকলেও বিষয়টিকে হাল্কাভাবে না দেখে তার বাড়তি সতর্ক ও নিরাপত্তার আয়োজন করা হয়েছে। আগামী ১৮ মে বুদ্ধপূর্ণিমায় পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশে হামলা চালাতে পারে জঙ্গীরা। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোর বরাত দিয়ে এমন একটি সংবাদ প্রকাশ করে ভারতের একাধিক গণমাধ্যম। এ কারণেই জঙ্গী হামলার আশঙ্কা থাকুক বা না থাকুক, নিরাপত্তা জোরদার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দানের বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

পুলিশ সদর দফতর সূত্র বলেছে, বাংলাদেশে বুদ্ধপূর্ণিমায় সন্ত্রাসী কিংবা নাশকতামূলক হামলার কোন তথ্য বা হুমকি নেই।