২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জ্ঞানচর্চার এক ভিন্নধর্মী আসর এডুকেশন ক্যাফে

  • সাদিক আল আমিন

শুধুমাত্র বই নয়, আছে বইয়ের সঙ্গী হিসেবে থাকা অনন্য চিন্তাভাবনা, সৃজনশীলতা, উদ্ভাবনী প্রয়োগের কৌশল অথবা আত্মপ্রকাশ এবং বিকাশের সুযোগ। যেমন আছে বইয়ের পাতায় ডুবে থেকে প্রহর কাটিয়ে দেয়ার সুযোগ, তেমনি আছে বিতর্ক, আবৃত্তি, জ্ঞান বিতরণ/গ্রহণের উন্মুক্ত মাধ্যম। দিনাজপুর জিলা স্কুলের একজন প্রতিভাবান শিক্ষকের উদ্যোগ এবং নিরলস তত্ত্বাবধানে তিলে তিলে গড়ে উঠেছে এডুকেশন ক্যাফে। দিনাজপুর শহরের বালুবাড়িতে গড়ে উঠেছে এই অনন্য উন্মুক্ত প্রতিষ্ঠানটি।

সাধারণ বুক ক্যাফের থেকে এর বিশেষত্ব যে আলাদা তা প্রবেশপথে সারি সারি মাথা হেলিয়ে ছায়া দানকারী গাছেদের অভিবাদন দেখেই বোঝা যায়। বাইরে আরও আছে গোল টেবিলের পাশে চারটে দোলনা, কাঠের গুঁড়িতে বানানো বসার ছোট টেবিল। মুক্তমনা পাঠকেরা কফিতে চুমুক দিতে দিতে দোলনায় বসে দোল খেতে পারেন। কফির পাশাপাশি আছে চা, আইসক্রিম, কোমল পানীয়, খিড়সা ইত্যাদি। সন্ধ্যের দিকে আছে স্নেক্সের ব্যবস্থা।

এডুকেশন ক্যাফের আছে নিজস্ব প্রকাশনা। প্রতিবছর বইমেলায় একটি করে ম্যাগাজিন দিনাজপুরের সাহিত্যপ্রেমীদের লেখায় সমৃদ্ধ হয়। এ ছাড়াও অন্য আনুষঙ্গিক বিষয়ের ওপর করা হয় প্রতিবেদন, ছোট দেয়ালিকাসহ আছে শিক্ষা বিকাশের অগণিত মাধ্যম। মূল বিষয়বস্তুগুলো ছাড়াও গাছ লাগানোর উৎসব, অসহায় ও দুস্থ মানুষদের সহযোগিতার জন্য আহ্বান সংক্রান্ত ব্যবস্থা বাস্তবায়িত হচ্ছে। জ্ঞান অর্জন যাতে প্রতিটি ধাপে হয়, সে জন্যে রয়েছে দেয়ালে দেয়ালে বিভিন্ন মনীষীদের অমীয় বাণী, মুক্তিযুদ্ধের সময় দিনাজপুরের স্মৃতিগঁাঁথা এবং কিছু দুর্লভ চিত্র। রয়েছে নিজস্ব ক্যালেন্ডার, তার পাতায় পাতায়ও আছে অভিজ্ঞতা অর্জনের ছোঁয়া এবং দিবস সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। ছোটদের ও বড়দের জন্য রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন পাঠকক্ষ। বিভিন্ন দিবস উপলক্ষে যেমন ছোটদের জন্য রয়েছে কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, তেমনি বড়দের লেখার প্রচেষ্টায় গড়ে ওঠে সাহিত্য ও মননের স্তম্ভ। সাহিত্য ও শিল্প বিষয়ক আলোচনা অনুপ্রাণিত করে তরুণ কবি/লেখকদের।

শাহজাহান সাজুর ভিন্নধর্মী চিন্তা-ভাবনার প্রয়াস এডুকেশন ক্যাফে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রাক্তন এই ছাত্র স্বপ্ন দেখেন বড় কিছু করার। তারই বহির্প্রকাশ এই ক্যাফে। সবাই একবার এখানে এলে জ্ঞান, অভিজ্ঞতা, শিক্ষার বিন্দুমাত্র নির্যাস হলেও নিয়ে যেতে পারবেন নিজের সঙ্গে। দিনাজপুরের এডুকেশন ক্যাফেতে স্বাগতম জানাতে চাই স্বল্প কথা বলে। এর পরিধি আরও বিস্তর এবং দিন গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বর্ণনাতীত উচ্চতায় পৌঁছাবে বলে আশা পোষণ করি।