১৬ মে ২০১৯

কবিতা

ঘুমাতে চললাম অনন্তকাল

রেবেকা ইসলাম

এখন আমার সমস্ত অবসাদ জেগে আছে

দেহের প্রতিটি শিরায় শিরায়, রন্ধ্রে রন্ধ্রে

আমি ঘুমাতে চলেছি অনন্তকাল,

ওই যে দূরের গাখোলা পাহাড়

অনন্তকাল কেঁদে কেঁদে পরিশ্রান্ত,

যাবতীয় ব্যর্থতা,যন্ত্রণা, লাঞ্ছনা, ক্ষোভ

যার বুকে জমে জমে

শক্ত পাথর হয়ে গেছে,

যার সাথে আকাশের ছিল নয়ানাভিরাম প্রেম

বাতাসেরও ছিল খুব সখ্য, মাখামাখি,

সেই গল্প পড়েছিলাম সারা দুপুর,

জানালা খুলতেই অপরাহ্ণ শেষ হয়ে গেল

সন্ধ্যাও চলে গেল পরিযায়ী পাখির দলের সাথে

এল কালো বিনুনি গেঁথে রাত,

আমি ঘুমাতে চললাম অনন্তকাল।

.

হ্যামলিন, তোমার বাঁশিকে

গোপাল রায়

আমি আকাশকে মুক্ত রেখে

বাতাসকে বদ্ধ রাখতে চাই না!

আমি তো মৌমাছির জন্য-

ফুল ফুটাতে চাই বালুর মরুভূমির মাঝেও!

পিরামিড ত্রিমাত্রিক হওয়া সত্ত্বেও

ডেড সিতে ডুবার অপচেস্টার মাঝেও আমি বলে যেতে চাই-

হ্যামলিন, তোমার বাঁশিকে আজ খামোস!