২৫ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সংকটাপন্ন খালিদ হোসেন

সংকটাপন্ন খালিদ হোসেন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একুশে পদকপ্রাপ্ত নজরুলসঙ্গীত শিল্পী ও গবেষক খালিদ হোসেনের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। তিনি ১০ দিন ধরে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের সিসিইউতে চিকিৎসাধীন। হাসপাতালে সহযোগী অধ্যাপক ডা. আব্দুল মোমেনের তত্ত্বাবধানে চলছে তার চিকিৎসা। গত ৪ মে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এই সঙ্গীতশিল্পীকে। তার ছেলে আসিফ হোসেন বলেন, আগের তুলনায় বাবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে।

চিনতে কষ্ট হচ্ছে স্বজনদের। চিকিৎসকরা আসলে কোনো আশা দেখাচ্ছেন না। বলছেন মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে। এখন সবকিছু মহান আল্লাহর উপরই নির্ভর করছে। সঙ্গীতশিল্পী খালিদ হোসেনের জন্য দোয়া চেয়েছেন তার পুত্র আসিফ। তিনি জানান, তার ৮৪ বছর বয়সি বাবা দীর্ঘদিন ধরেই হৃদরোগে ভুগছেন। ইদানীং তার কিডনির জটিলতা বেড়েছে। ফুসফুসেও সমস্যা হয়েছে। পাশাপাশি বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন সমস্যা আছে।

বরেণ্য এ শিল্পী অনেকদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত নানা অসুখের পাশাপাশি ফুসফুস আর হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছেন। শারীরিক গুরুতর সমস্যা নিয়ে তিনি গত বছরের শুরুর দিকে ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তিও হয়েছিলেন। এরপর থেকে প্রতি মাসে তাকে একটি বিশেষ ইনজেকশন দিতে হয়। এ কারণে ভর্তি হতে হয় হাসপাতালে। ইনজেকশন দেয়ার দুদিন পরই তিনি বাসায় ফিরে যান। এবারও একই কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ইনজেকশন দেয়ার পর আর বাসায় ফিরে যেতে পারছেন না।

শিল্পী ও গবেষক খালিদ হোসেনের পরিবার তার সুস্থতার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। প্রসঙ্গত, গুণী এ শিল্পীর চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বছর ১০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছিলেন। খালিদ হোসেন ১৯৪০ সালের ৪ঠা ডিসেম্বর কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন। পাঁচ দশক ধরে বাংলাদেশে নজরুলসঙ্গীতের শিক্ষক, গবেষক ও শুদ্ধ স্বরলিপি প্রণয়নে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

ক্যারিয়ারে তার ছয়টি নজরুল সঙ্গীতের এ্যালবাম প্রকাশ হয়েছে। তার একটি আধুনিক গানের এ্যালবাম ও ১২টি ইসলামী গানের এ্যালবামও রয়েছে। খালিদ হোসেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় ও দেশের সব মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড এবং বাংলাদেশ টেক্সট বুক বোর্ডে সঙ্গীত নিয়ে প্রশিক্ষক ও নিরীক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছেন। নজরুল ইনস্টিটিউটে নজরুল সঙ্গীতের আদি সুরভিত্তিক নজরুল স্বরলিপি প্রমাণীকরণ পরিষদের সদস্য তিনি।