২৬ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আনিসুল হকের উপন্যাসের নায়িকা অধরা

আনিসুল হকের উপন্যাসের নায়িকা অধরা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আনিসুল হকের ‘হৃদিতা’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে চলচ্চিত্র। এতে হৃদিতা চরিত্রে অভিনয় করবেন অধরা খান। বাপ্পী চৌধুরীকে নিয়ে ‘নায়ক’ আর সাইমন সাদিকের সঙ্গে ‘মাতাল’ দিয়ে নিজের অবস্থান জানান দিয়ে রেখেছেন উঠতি নায়িকা অধরা খান। সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এবার তিনি হয়ে উঠছেন কথাসাহিত্যিক আনিসুল হকের উপন্যাসের নায়িকা।

অধরা জানান, এতে তাকে পাওয়া যাবে হৃদিতা চরিত্রে, নায়ক হিসেবে এবার পাচ্ছেন রোশানকে। ছবিটি পরিচালনা করবেন ইস্পাহানী আরিফ জাহান। শুটিং শুরু হবে রোজার ঈদের পর।

এই ছবির প্রসঙ্গে যাওয়ার আগে অধরাকে নিয়ে একটু ফ্ল্যাশব্যাকে যাওয়া যাক। ২০১৬ সালে শাহীন সুমনের ‘পাগলের মতো ভালোবাসি’ দিয়ে প্রথম তিনি পা ফেলেন ঢালিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। এরপর একই পরিচালকের ‘মাতাল’ ছবিতেও যুক্ত হন তিনি। যদিও প্রথম দুটিকে অতিক্রম করে অধরার প্রথম মুক্তি পাওয়া ছবি ইস্পাহানি আরিফ জাহানের ‘নায়ক’। অধরা বললেন, এটা একটা মজার বিষয়। আমার শেষ শুটিং করা ছবিটি (নায়ক) মুক্তি পায় সবার আগে। এরপর এক সপ্তাহের ব্যবধানে দ্বিতীয় ছবি (মাতাল)।

আর শিগগিরই মুক্তির কথা রয়েছে প্রথম ছবিটি। আসলে একটি সিনেমা নির্মাণ থেকে শুরু করে মুক্তি পর্যন্ত দীর্ঘ একটি প্রক্রিয়া। ফলে এমনটা হতেই পারে। ছবিগুলোর উদাহরণ টেনে অধরা খান বললেন, গুণী পরিচালকদের হাত ধরে আমার শুরুটা হলো। শাহীন সুমন আমাকে ইন্ডাস্ট্রিতে এনেছেন, ইস্পাহানী আরিফ জাহান আমাকে প্রথম প্রেক্ষাগৃহের স্বাদ দিয়েছেন। একজন নায়িকা হিসেবে এটা আমার জন্য বড় প্রাপ্তি। তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। পরিসংখ্যান বলছে, গত বছর ‘নায়ক’ সিনেমাটি প্রথম সপ্তাহে ৭৫টি হলে মুক্তি পেয়েছে। পরের সপ্তাহে মুক্তি পাওয়া ‘মাতাল’ পেয়েছে ৮০ হল। দুটো সিনেমার মুক্তির সময়ে জটিলতা তৈরি হয়েছিলো। হাইকোর্টের রায়ে বাধা ছিলো মুক্তিতে।

কিন্তু সব বাধা ছাপিয়ে দুটো সিনেমাই মুক্তি পেয়েছে এবং দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছে। ছবি দুটির ফলাফলে অধরার কণ্ঠে বেশ স্বস্তি। বললেন, আসলে এই দুটি সিনেমার মাধ্যমে দর্শকরা যেভাবে আমাকে নিয়ে আলোচনা করেছেন, তা সত্যিই প্রেরণা জুগিয়েছে। আমি পরিচালক নির্ভর একজন শিল্পী। তাদের নির্দেশনা, স্ক্রিপ্টিং নিয়েই ডুবে থাকি। ফলে, প্রথম দুটো ছবির ফলাফলে আমি বেশ স্বস্তিতে আছে। এখন সময় আরও ভালো কিছু করার।

মূলত সেই ‘আরও ভালো’ কিছু করার ইচ্ছাশক্তিতেই অধরা খান এই পর্যায়ে খুঁজে পেয়েছেন কথাসাহিত্যিক আনিসুল হকের হৃদিতাকে।

আনিসুল হকের সঙ্গে নির্মাতাযুগল ইস্পাহানী আরিফ জাহান

ছবিটির নির্মাতাযুগল ইস্পাহানী আরিফ জাহানের মতে, ‘কাজের প্রতি অধরা খানের সিরিয়াসনেস ও আগ্রহটাই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সে হিসেবেই হৃদিতা চরিত্রে তাকে চূড়ান্ত করা হয়েছে। আমার বিশ্বাস, অধরা ঠিকই উপন্যাস থেকে পর্দার হৃদিতা হয়ে উঠবেন।’

নির্মাতাদ্বয় জানান, আনিসুল হকের সম্মতিক্রমে উপন্যাসটির চিত্রনাট্যের কাজ শুরু হয়েছে। প্রাথমিক নাম ‘ড্রিমগার্ল’ রাখা হয়েছে। এরমধ্যে ছবিটির মহরত অনুষ্ঠানও হয়েছে। অপেক্ষা শুধু ঈদের, তারপরই শুরু“ হবে টানা শুটিং।