১৯ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিল্পকলায় দেশ নাটকের ‘নিত্যপুরাণ’ মঞ্চস্থ

 শিল্পকলায় দেশ নাটকের  ‘নিত্যপুরাণ’  মঞ্চস্থ
  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পঞ্চস্বামী গর্বিতা দ্রৌপদী। মহাভারতের কবি ব্যাসদেব তাকে তুলনা করেছেন নীলকান্ত মনির সঙ্গে। সেই মহাভারতের কাল থেকে এখন পর্যন্ত তার গুণ, পছন্দ, ব্যক্তিত্বের বৈশিষ্ট্য এবং চরিত্র সবাইকে ভাবায়। দ্রৌপদীর প্রশংসা সবার মুখে। এটি এমনই একটি সংবেদনশীল চরিত্র যে নিজের মত করে জীবনযুদ্ধে লড়তে শেখায় সবাইকে। দ্রৌপদী সেই বিরল নারীদের একজন যিনি নিজের অধিকার ছিনিয়ে নিয়েছিলেন। পঞ্চস্বামীর একাধিক স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও নিজের গুরুত্ব আলাদা করে বুঝে নিয়েছিলেন।

মহাভারতের সাতটি চরিত্র ‘পঞ্চপাণ্ডব’, ‘দ্রৌপদী’ আর ‘দ্রোন’-কে নিয়ে নতুন একটি আখ্যান রচনা করেছেন মাসুম রেজা। ‘নিত্যপুরাণ’ নামের এ নাটকটির নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি। দেশ নাটক প্রযোজিত ‘নিত্যপুরাণ’ নাটকের ৯৭তম মঞ্চায়ন হয় শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে রবিবার সন্ধ্যায়। মহাভারতে একলব্যের সঙ্গে দ্রৌপদীর দেখা হয় না। কিন্তু ‘নিত্যপুরাণ’ নাটকে তাদের দেখা হয়। নাট্যকার ও নির্দেশক মাসুম রেজা বললেন, যদিও মহাভারত থেকে চরিত্রগুলো বের করে এনে নতুন একটি আখ্যান রচনা করেছি, কিন্তু নাটকে এক সময় চরিত্রগুলো আবার মহাভারতের সঙ্গে মিলে যায়। নাটকে দেখা যায়, হিন্দু সমাজে জাতের ভেদাভেদ প্রবল। শ্রেণী বৈষম্যের কারণে প্রায়ই নির্যাতনের শিকার হয় নিম্নবর্ণের তথা নিচু জাতের মানুষেরা। মহাভারতের একলব্য তেমনি একটি চরিত্র। নিচু জাতের বলে প্রতি পদে পদে লাঞ্ছনা আর বৈষম্যের শিকার হয় একলব্য। নিষাদরাজ হিরণ্যধনুর পুত্র নিম্নবর্ণের সন্তান একলব্যকে ঘিরেই প্রযোজনাটি বিন্যস্ত হয়েছে। পঞ্চপান্ডবের সঙ্গে অস্ত্রশিক্ষা লাভের জন্য শিক্ষাগুরু দ্রোণাচার্যের কাছে যায় একলব্য। তবে নিচু জাত বলে একলব্যকে শিষ্য হিসেবে গ্রহণে অস্বীকৃতি জানান দ্রোণাচার্য। দ্রোণাচার্যের শিষ্য অর্জুন অর্থাৎ পঞ্চপান্ডব একলব্যের কাছে পরাজিত হন ধনুবিদ্যায়। অস্ত্র প্রতিযোগিতার শর্তানুসারে মৃত্যুর মুখোমুখি হয় পঞ্চপান্ডব। কিন্তু দ্রোণাচার্যের কুটিলতায় বেঁচে যায় পঞ্চপান্ডবের জীবন। এভাবেই এগিয়ে যায় নাটকটির কাহিনী।

নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন মামুন চৌধুরী রিপন, বন্যা মির্জা, কামাল আহমেদ, ফিরোজ আলম, লরেন্স উজ্জ্বল গোমেজ, হোসাইন নীরব, মাইনুল হাসান মাঈন, সমাপন সরকার, সুস্মিতা সাহা, জলি চৌধুরী, তামিমা তিথি, মেঘলা মায়া, ইসমত জেরিন, কাজী লায়লা বিলকিস, সানজিদা লতা, সালমান লিমন, আবিদুর রহমান আদর প্রমুখ।

রমজানের কারণে স্থবির সাংস্কৃতিক অঙ্গন। নাটক মঞ্চায়ন তো দূরের কথা নাট্যকর্মীদের আনাগোনাও খুব একটা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না নাটকপাড়ায়। নাট্যকর্মী ও দর্শকের পদচারণায় প্রতিদিনের জমজমাট শিল্পকলা একাডেমিও যেন অনেকটা নিষ্প্রাণ। আর এ বিষয়টি উপলব্ধি করে ‘নিত্যপুরাণ’ নাটকটি দুদিন মঞ্চায়নের আয়োজন করেছে নাটকের দল দেশ নাটক। রবিবার ছিল প্রথম প্রদর্শনী। আজ সোমবার শেষ হবে দুইদিনের এই আয়োজন।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া