১৮ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বেয়ার্নের টানা সাত

জিএম মোস্তফা ॥ গত অর্ধযুগ ধরেই জার্মান বুন্দেসলিগায় একক রাজত্ব করছে বেয়ার্ন মিউনিখ। এই সময়ে টানা ছয়বার লীগ শিরোপা জয়ের অবিস্মরণীয় কীর্তি গড়ে তারা। কিন্তু ২০১৮-১৯ মৌসুমেই যেন ছন্দ হারিয়ে ফেলে বেয়ার্ন। তাদের বাজে পারফর্মেন্সের সুযোগ কাজে লাগিয়ে বুন্দেসলিগার শিরোপা পুনরুদ্ধারে অনেকটাই এগিয়ে আসে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর পেরে ওঠেনি তারা। বরং শীতকালীন ছুটির সময়টাসহ পুরো মৌসুমের ১৭৪ দিন পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা বরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে হটিয়ে এবারও জার্মান বুন্দেসলিগার শিরোপা নিজেদের শোকেসে তুলে বেয়ার্ন মিউনিখ। সেই সঙ্গে জার্মানির ইতিহাসে প্রথম দল হিসেবে টানা সাতবার বুন্দেসলিগার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে তারা। জার্মান বুন্দেসলিগায় এটা বেয়ার্নের ২৯তম শিরোপা।

শনিবার টুর্নামেন্টের শেষ ম্যাচে ফ্রাঙ্কফুর্টের মুখোমুখি হয় নিকো কোভাচের দল। আর এই ম্যাচে প্রতিপক্ষকে ৫-১ গোলের বড় ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েই বুন্দেসলিগার মুকুট জিতে বেয়ার্ন মিউনিখ। এইনট্র্যাক্ট ফ্রাঙ্কফুর্টের বিপক্ষে এদিন একটি করে গোল করেছেন কোম্যান, ডেভিড আলাবা, রেনেতো সানচেজ, ফ্রাঙ্ক রিবেরি এবং আরিয়েন রোবেন। ফ্রাঙ্কফুর্টের হয়ে সান্ত¡নাসূচক গোলটি করেন হালের। এর আগে কোভাচের অধীনে জার্মান সুপার কাপের ট্রফিও জিতে বেয়ার্ন। লীগেও চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় এবার দুই শিরোপা জিতেই মৌসুম শেষ করল জার্মান জায়ান্টরা। তবে ডাবল শিরোপা জিতলেও শেষ রক্ষা হচ্ছে না বেয়ার্ন কোচ নিকো কোভাচের।

এ্যালিয়েঞ্জ এ্যারেনায় লীগের শেষ ম্যাচের শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলে বেয়ার্ন। ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। চতুর্থ মিনিটে কিংসলে কোমানের গোলে প্রথম লিড নেয় তারা। এরপর অবশ্য স্বাগতিকদের দারুণভাবে রুখে দেয় সফরকারীরা। যে কারণে প্রথমার্ধে আর গোল হয়নি। যদিওবা বেশ কটি সুযোগ নষ্ট করেছে বেয়ার্ন মিউনিখ। বিরতির পর ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দেয় ফ্রাঙ্কফুর্ট। ৫০ মিনিটেই সমতায় ফেরে তারা। গোলটি করেন ফরাসী ফরোয়ার্ড সেবাস্তিয়াঁ আলেয়া। তবে গোল হজম করেই যেন জ্বলে ওঠে বেয়ার্ন। ৫৩ মিনিটেই বেয়ার্নের গোল ব্যবধান ২-১ করে দেন ডেভিড আলাবা। ম্যাচের ৫৮ মিনিটে পর্তুগীজ মিডফিল্ডার রেনেতো সানচেজের গোলে বেয়ার্নের ব্যবধান ৩-১ হয়। এরপর ম্যাচের ৭২ মিনিটে ফ্রাঙ্ক রিবেরির দুর্দান্ত গোলে ব্যবধান গিয়ে দাঁড়ায় ৪-১। এরপরও থামেনি স্বাগতিকদের গোলোৎসব। গোলের বন্যা ভাসিয়ে দেয়ার ম্যাচে বেয়ার্নের হয়ে শেষ গোলটি করেন আরিয়ান রোবেন। দ্বিতীয়ার্ধের ৭৮ মিনিটে গোলোৎসবে যোগ দেন বেয়ার্নের এই ডাচ তারকা। আর তাতেই শিরোপা নিশ্চিত হয় বেয়ার্নের। এই জয়ের ফলে ৩৪ ম্যাচ থেকে ৭৮ পয়েন্ট নিয়ে চলতি মৌসুমের শিরোপা নিশ্চিত করে জার্মান চ্যাম্পিয়নরা। তাদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বরুশিয়া ডর্টমুন্ড সমান ম্যাচে ৭৬ পয়েন্ট অর্জন করে। শনিবার তারা ২-০ গোলে পরাজিত করে বরুশিয়া মনশেনগ্ল্যাডবাখকে।

তবে বুন্দেসলিগার চ্যাম্পিয়ন হলেও নিকো কোভাচের ভবিষ্যত নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। কেননা ঘনঘন কোচ বদল করাটাকে যে নিয়মিত রীতিতে পরিণত করে ফেলেছে বেয়ার্ন মিউনিখ। মোটামুটি প্রতি মৌসুমেই এখন নতুন কাউকে না কাউকে খোঁজ করে তারা। যেমনটা দেখা যায় ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের ক্লাব চেলসির ক্ষেত্রেও। এমনও নজির আছে, পুরো এক মৌসুম শেষ হওয়ার আগেই কোচ বদল করে ফেলে তারা। এবার কাটা পড়তে যাচ্ছেন নিকো কোভাচ। অথচ গত বছরই বেয়ার্ন মিউনিখের দায়িত্ব পেয়েছিলেন তিনি। এবারই হয়তো তাকে ছাড়তে হবে কোচের আসন। জার্মান গণমাধ্যমের বিভিন্ন প্রতিবেদনে জানা যায়, এই মৌসুমের পরপরই কোভাচের সঙ্গে লেনদেন শেষ করবে বেভারিয়ানরা।

ফ্রাঙ্কফুর্টের কোচের দায়িত্ব পাওয়ার পর দারুণ করেছিলেন কোভাচ। ২০১৬ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত তাদের উন্নতির গ্রাফও ছিল উর্ধমুখী। তাতে নজর পড়ে বেয়ার্নের। ফ্রাঙ্কফুর্ট থেকে তাকে উড়িয়ে আনা হয় এ্যালিয়ঞ্জ এ্যারেনায়। কিন্তু বেয়ার্নে এখন তার ভবিষ্যত দুলছে শঙ্কায়।

নির্বাচিত সংবাদ