২৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিমানের হজ টিকেট বিক্রি শুরু

বিমানের হজ টিকেট বিক্রি শুরু

অনলাইন রিপোর্টার ॥ এ বছরের হজ ফ্লাইটের টিকেট বিক্রি শুরু করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

সোমবার থেকে হজ ফ্লাইটের টিকেট বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে বিমানের জনসংযোগ শাখার মহাব্যবস্থাপক শাকিল মেরাজ জানিয়েছেন।

“এ বছর হজে যাবেন এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। এর মধ্যে ৬৩ হাজার ৫৯৯ জনকে পরিবহন করবে,” বলেন তিনি।

বিমানের হজ ফ্লাইট শুরু হবে আগামী ৪ জুলাই থেকে। এরপর ৫ আগস্ট পর্যন্ত ১৫৭টি ডেডিকেটেড ও ৩২টি শিডিউল ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান।

শাকিল মেরাজ জানান, এ বছরই প্রথম ঢাকা থেকে মদিনায় ১১টি ফ্লাইট পরিচালিত হবে। এছাড়া চট্টগ্রাম থেকে জেদ্দা ১০টি, সিলেট থেকে জেদ্দা তিনটি, চট্টগ্রাম থেকে মদিনা সাতটি ডেডিকেটেড হজ ফ্লাইট চলবে। বাকি ১২৬টি ফ্লাইট ঢাকা থেকে জেদ্দায় নিয়ে যাবে হজযাত্রীদের।

এ বছর হজ ফ্লাইটে নিজস্ব বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর উড়োজাহাজ ব্যবহার করবে বিমান। বিমানের ফিরতি হজ ফ্লাইট ১৭ অগাস্ট থেকে শুরু হয় শেষ হবে ১৪ সেপ্টেম্বর।

শাকিল মেরাজ বলেন, এ বছরই প্রথম ঢাকায় ইমিগ্রেশন করা হবে হজযাত্রীদের। ফলে সৌদি আরবে গিয়ে ইমিগ্রেশনের জন্য লাইনে দাঁড়াতে হবে না। তবে এজন্য ফ্লাইটের একদিন আগে হজযাত্রীদের তথ্য সৌদি আরবে পাঠাতে হবে। ওই সময়ের পর ফ্লাইটে নতুন করে যাত্রী নেওয়া যাবে না।

“এ কারণে হজ এজেন্ট ও যাত্রীদেরকে তাদের ফ্লাইট ডিপার্চারের ২৪ ঘণ্টা আগেই যাত্রার বিষয়টি আবশ্যিকভাবে নিশ্চিত করতে হবে।”

তিনি আরও বলেন, নির্ধারিত শিডিউলের বাইরে অতিরিক্ত স্লট দেবে না সৌদি সরকার। জটিলতা এড়াতে এ বছর কোনো হজযাত্রী ফ্লাইট বাতিল করলে বা সময় পরিবর্তন করলে জরিমানা আদায় করবে বিমান।

“যাত্রা বাতিলের ক্ষেত্রে ৩৫০ ডলার এবং যাত্রার তারিখ পরিবর্তনের ক্ষেত্রে সময় ভেদে ২০০ থেকে ৩০০ ডলার পরিশোধ করতে হবে।”

গত বছর পর্যাপ্ত হজযাত্রী না পাওয়ায় বিমানের বেশ কয়েকটি ফ্লাইট বাতিল করতে হয়েছিল। এজন্য কয়েক হাজার আসনের আয় হারাতে হয়েছে বিমানকে।

বার বার তাগাদা দেওয়ার পরও হজ এজেন্সিগুলো যথাসময়ে টিকেট না কেনায় একের পর এক ফ্লাইট বাতিল করতে হয় বলে তখন জানিয়েছিলেন শাকিল মেরাজ।

এবারও সুষ্ঠুভাবে হজ ফ্লাইট পরিচালনা করতে বিমানের পক্ষ থেকে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, হজ এজেন্সি ও হজযাত্রীরা সময় মতো টিকেট সংগ্রহ করলে কোনো ধরনের জটিলতা হবে না।