২৪ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার হওয়ার পর আত্মহত্যার চেষ্টা

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ মধুর ক্যান্টিনে সংঘটিত অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার দায়ে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পর ফেসবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন গত কমিটির সদস্য জারিন দিয়া। সোমবার রাতে ঘুমের ওষুধ খেয়ে তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করলে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, ঘুমের ওষুধ খেয়ে অসুস্থ অবস্থায় জারিন দিয়াকে সোমবার রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। সেখানে তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়। হাসপাতালের ৫০২ নম্বর ওয়ার্ডে তিনি ভর্তি ছিলেন। মঙ্গলবার দুপুরে তাকে রিলিজ দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে রোকেয়া হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি বি এম লিপি আক্তার বলেন, বহিষ্কারের ক্ষোভ থেকে অতিরিক্ত ঘুমের ওষুুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে দিয়া। রাতে তাকে আমরা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর এখন তার শারীরিক অবস্থা ভাল। তাকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

জারিন দিয়াকে বহিষ্কারের বিষয়ে তিনি বলেন, ওই দিন মধুর ক্যান্টিনে হামলায় দিয়াও আহত হয়েছে। ছাত্রলীগে পদ না পেয়ে ব্যক্তিগত ক্ষোভ থেকে সেদিন ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিল। সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের ওপর তার ক্ষোভ থাকতেই পারে। তাকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করে তার সঙ্গে অন্যায় করা হয়েছে। আমরা তার বহিষ্কার মানি না। এ বিষয়ে জারিন দিয়া বলেন, ভালবাসার সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে হয়তো অনেক বেশিই ভালবেসে ফেলেছি। আমি খুব সাধারণ একজন কর্মী। কারোর সঙ্গে কোন শত্রুতা ছিল না কোন দিন। ফেসবুকে একটা লেখার মাধ্যমে হয়তো আজ অনেক আলোচনা সমালোচনার মুখোমুখি হয়ে পড়েছি। পদ থেকে বঞ্চিত হয়েছি বলেই স্ট্যাটাসটা দেইনি। আসলে জমে থাকা কষ্টগুলো ভেতরে আর রাখতে পারিনি। সত্যি অনেক পরিশ্রম করেছিলাম।