২৫ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পুঁজিবাজারে সংস্কার এগিয়ে নিতে উচ্চপর্যায়ের কমিটি গঠন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শেয়ারবাজারের চলমান সংস্কার কাজকে এগিয়ে নিতে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির নেতৃত্ব দেবেন ঢাকা ব্রোকারেজ এসোসিয়েশনের সভাপতি শাকিল রিজভী। বুধবার ঢাকা স্টক একচেঞ্জের পর্ষদ কক্ষে আয়োজিত সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। শেয়ারবাজারের স্বার্থে সংশ্লিষ্টদের সবপক্ষের বক্তব্য যেন একই রকম হয়, সেটিই এই কমিটির উদ্দেশ্য বলে বৈঠক শেষে জানানো হয়েছে। বুধবার ডিএসইর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই), ডিএসই ব্রোকার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিবিএ), চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) ও বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) মধ্যে একটি সমন্বয় কমিটি তৈরী হয়েছে। যে কমিটি আগামিতে একসঙ্গে কাজ করবে।

বৈঠক শেষে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদের সদস্য রকিবুর রহমান বলেন, ডিএসই, ডিবিএ, সিএসই ও বিএমবিএ’র মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। যার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে সবার মধ্যে সমন্বয় তৈরী করা। যাতে আগামিতে শেয়ারবাজার নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন প্রস্তাব না দিয়ে, সমন্বয় করে একটি প্রস্তাব দেওয়া হয়। আগামিতে যেকোন বিষয়ে প্রস্তাব দেওয়ার ক্ষেত্রে এই ৪টি সংগঠনের পক্ষে একটি প্রস্তাব দেওয়া হবে। এলক্ষ্যে ডিএসইর পক্ষ্যে পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ডিবিএর পক্ষে শাকিল রিজভী, সিএসইর পক্ষে ছায়েদুর রহমান ও বিএমবিএর পক্ষে নাসির চৌধুরীর নেতৃত্বে প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠান থেকে ৩জন করে প্রতিনিধি থাকবে। তবে বিশেষ ক্ষেত্রে প্রতিনিধি ছাড়াও চার প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্দ সিদ্ধান্ত নিতে পারবে।

ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন বলেন, যেসব উদ্যোক্তা/পরিচালক ঘোষণা না দিয়ে শেয়ার বিক্রি করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই লক্ষ্যে ওইসব উদ্যোক্তা/পরিচালকদের তালিকা খুঁজে বের করতে ডিএসইর প্রধান নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তাকে (সিআরও) দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এছাড়া না জানিয়ে শেয়ার বিক্রি করে উদ্যোক্তা/পরিচালকরা কত টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে, সিআরও সেই সেই তথ্যও বের করবেন।

এরপরে ওইসব উদ্যোক্তা/পরিচালকের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ি সকল পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য বিএসইসিকে অবহিত করা হবে। ইমন আরও বলেন, গত কিছুদিনে অনেক সংস্কারের পরে শেয়ারবাজারে গতি পাচ্ছে না। মনে হচ্ছে কোথাও কোন গ্যাপ আছে। সেটা সমন্বয়ের অভাব বলেই বুধবারের সভায় মনে হয়েছে। তাই আগামীতে ডিএসই, ডিবিএ, সিএসই ও বিএমবিএ একসাথে কাজ করবে। সবার দাবি ও উদ্দেশ্য হবে এক। সবাই একই সুরে কথা বলবো। তিনি বলেন, শেয়ারবাজারে অনেকে ২ শতাংশ শেয়ার ধারন না করেও পরিচালক পদে বসে রয়েছে। এ সমস্যারোধে কমিশন এরই মধ্যে পদক্ষেপ নিয়েছে। তারপরেও এ বিষয়ে গঠিত কমিটির মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকে কিছু প্রস্তাব দেওয়া হবে। এছাড়া শেয়ারবাজারে উন্নয়নে এক্সটেনশন অফিস ২ কিলোমিটারের বাহিরেও খোলার অনুমতির জন্য কমিশনে দাবি জানানো হবে।

শাকিল রিজভী বলেন, আমরা বিভিন্ন বিষয়ে সংস্কার চাইতেই পারি। তবে শেয়ারের দর উঠা-নামার জন্য কাউকে দায়ী করা ঠিক হবে না। সারাবিশ্বের শেয়ারবাজারে শেয়ার দর উঠা-নামা করে। সেটা অনেক কারনেই হতে পারে। এক্ষেত্রে বিএসইসিকে দায়ী করা ঠিক হবে না।