২৫ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেখ জামালের কাছে হার রহমতগঞ্জের

  • বিপিএল ফুটবল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের ৯৪ নম্বর ম্যাচ। খেলার ৭২ মিনিট পেরিয়ে গেছে। অথচ তখনও কোন দলই গোল করতে পারেনি। যদিও উভয় দলই দারুণ আক্রমাণাত্মক খেলছে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে খেলা উপভোগ করতে আসা গুটিকয়েক দর্শক ধরেই নিয়েছেন শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব বনাম রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটি ম্যাচটি শেষ হবে গোলশূন্য ড্রতে। খেলা যখন শেষ হলো, তখন কিন্তু দর্শকদের ধারণা সম্পূর্ণ ভুল প্রমাণিত করেছে শেখ জামাল। তিনবারের লীগ চ্যাম্পিয়নরাই জিতে নিল ম্যাচ, তাও স্কোরলাইন ৪-০ করে! অথচ লীগের প্রথম লেগে এই দুই দলের খেলাটি ড্র হয়েছিল ২-২ গোলে।

তিন গোলের প্রথম দুটি গোলই ‘বেঙ্গল ইয়োলোস’ পেয়েছে পেনাল্টির বদৌলতে। ৭৩ ও ৮২ মিনিটে দুটি পেনাল্টি থেকেই গোল করেন জামালের অধিনায়ক ও গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড সলোমন কিং কানফর্ম। তবে দ্বিতীয় পেনাল্টিটি ছিল বিতর্কিত। কেননা ভিডিও রিপ্লেতে মনে হয়েছে রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক আরিফুল ইসলাম ফাউল করেননি জামালের মিডফিল্ডার আলী হোসেনকে। কিন্তু রেফারি আনিসুর রহমান পেনাল্টির বাঁশি বাজান। আগের পেনাল্টিও জামাল পায় আলী হোসেনের কল্যাণেই। তাকে বক্সের ভেতরে ফাউল করেন রহমতগঞ্জের বদলি ডিফেন্ডার সাজন মিয়া। মজার ব্যাপারÑ আলী এবং সাজন দুজনেরই জার্সি নম্বর ১৭! মূলত জোড়া পেনাল্টিতেই ভাগ্য খুলে যায় জামালের। আর শেষ হয়ে যায় পুরনো ঢাকার ক্লাব রহমতগঞ্জের মনোবল। আর তার জেরেই শেষেরদিকে আরও দুটি গোল হজম করে তারা। গোলদুটি করেন গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড ইবৌ সাম্বু (৮৭ মিনিটে) এবং ফরোয়ার্ড সাখাওয়াত হোসেন রনি (৯০+৯ মিনিটে)।

নিজেদের পঞ্চদশ ম্যাচে এটা জামালের চতুর্থ জয়। ১৮ পয়েন্ট তাদের। পয়েন্ট টেবিলে দুই ধাপ উপরে উঠে এখন তারা ছয়ে। পক্ষান্তরে সমান ম্যাচে রহমতগঞ্জের এটা ষষ্ঠ হার। ১৫ পয়েন্ট নিয়ে তারা রয়ে গেছে আগের নবম স্থানেই (১৩ দলের মধ্যে)।