২৪ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চট্টগ্রামে বিপণিবিতানে তারুণ্যের ঝড়

  • ঈদের বাজার ॥ পোশাকের বাহারি কালেকশন

মাকসুদ আহমদ, চট্টগ্রাম অফিস ॥ রমজান শেষে ঈদের আনন্দ। পোশাকের বাহারে আনন্দের হাসি ফুটে ওঠে শিশু-কিশোর আর তরুণ-তরুণীদের মাঝে। টিনেজ থেকে শুরু করে শিশুদের মধ্যেও পোশাকের বাহার কাজ করছে প্রতিনিয়ত। তবে প্রবীণ সমাজ এক সময় সাদাসিধে পোশাক নির্ভরশীল থাকলেও ডিজিটাল যুগে এসে তৃতীয় প্রজন্মের দেখাদেখি রঙিন পোশাকে অনেকেই নিজেদের সাজাতে চায়। ফলে টিনেজদের সঙ্গে ছুটছে প্রবীণরাও। বিভিন্ন শপিং মলে হুমড়ি খেয়ে পড়ে পছন্দের পোশাকের জন্য। এদিকে, মার্কেটের বাইরে শিশুদের নজর কাড়তে বিদেশী খেলনা নিয়ে পসরা বসিয়েছে ভাসমান ব্যবসায়ীরা। চট্টগ্রামে প্রায় দুশোর কাছাকাছি শপিং মল ও মার্কেট ইতোমধ্যে জমে উঠেছে। এর মধ্যে এ বছর আবার ইন্ডিভিজুয়্যাল শো রুমের সংখ্যাও বেড়ে গেছে ঈদকে কেন্দ্র করে অল্প কিছুদিনের মধ্যে। নগরীর সবচেয়ে বেশি একক শো রুম দেখা যাচ্ছে চকবাজার, জিইসি ও আগ্রাবাদকেন্দ্রিক। পাশাপাশি বুটিকস হাউসগুলো পুরনো ঐতিহ্য ধরে রাখতে পোশাকের স্তূপে আর ক্রেতাদের ভিড়ে জমজমাট। ফ্যাশনের পাল্লা ভারি করতে আড়ংয়ের মতো ক্ষুদ্র কুটির শিল্পে তৈরি হাতের নক্সী কালেকশনেও টিনেজদের পিছুটান নেই। এদিকে, বিভিন্ন ক্রেতা নগরীর পাইকারি বাজার ও খুচরা বাজারের তুলনা করতে গিয়ে ঈদের পোশাকের দাম অন্যবারের তুলনায় অনেক বেশি বলে দাবি করেছেন। কিন্তু বিক্রেতারা বলছেন ফ্যাশনের কথা চিন্তা করতে গিয়ে কস্টিং বেড়ে গেছে। তাই দাম তুলনামূলকভাবে ততটা নাগালের বাইরে নয়।

তরুণ সমাজের মধ্যে এবার টি শার্ট, পলো টি শার্ট, ক্যাজুয়্যাল টি শার্ট, ফরমাল টি শার্ট, ফতুয়া ও পাঞ্জাবি কমন আইটেমে পরিণত হয়েছে। তবে পাঞ্জাবির সঙ্গে তরুণরা এখন ওড়না ব্যবহারের যে ফ্যাশন তুলে ধরেছে তাতে শিশুরাও পাঞ্জাবির সঙ্গে তাদের চাহিদা মেটাতে অভিভাবকদের নজরে দিয়ে বিচরণ করছে মার্কেটগুলোতে। নগরীর বিভিন্ন শপিং মলগুলোর মধ্যে মেগা মার্ট, আফমী প্লাজা, সানমার ওশান সিটি, আমিন সেন্টার, আখতারুজ্জামান সেন্টার, চিটাগাং শপিং সেন্টার ছাড়াও একক শো রুমের মধ্যে টেরি বাজারের মনেরেখ, স্টার প্লাস, ঝুমকা, ক্যাটস আই, সৃষ্টি, অঞ্জনস, সালসা বিলসহ নামীদামী বেশকিছু ডিসপ্লে এবার তরুণদের জন্য ভাল কালেকশন রেখেছে। আড়ংয়ের ফতুয়া ও পাঞ্জাবি কালেকশনে তরুণদের অবস্থান একধাপ এগিয়ে।

আর বাঙালী পরিবারের মেয়েরা ঝুঁকে পড়ে এসব নামের ওপর ভিত্তি করে পোশাকের খোঁজে। সে ফাঁকে অসাধু ব্যবসায়ী ও ডিজাইনাররা নাম বিকিকিনির মধ্য দিয়ে নিজেদের অবস্থান চাঙ্গা করে নেয়। মূলত দেশীয় সাজে, দেশীয় তৈরি পোশাকের প্রতি সচেতন নাগরিকদের নানা বুলি শেষ পর্যন্ত ভেস্তে যায় বিভিন্ন শোরুমের ডিসপ্লেতে সাজানো পোশাকের ভিড়।

নির্বাচিত সংবাদ