২৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বজ্রমেঘের ঘনঘটা ॥ বন্দরে তিন নম্বর সঙ্কেত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আকাশে বজ্রমেঘের ঘনঘটা বেড়ে গেছে। ফলে উত্তর বঙ্গোপসাগর, দেশের উপকূলীয় এলাকায় এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অফিস। এ অবস্থায় চট্টগ্রাম, কক্সবাজার মংলা ও পায়রা বন্দরসমূহের ওপর দিয়ে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

এদিকে বজ্রমেঘের ঘনঘটার কারণে শনিবার সকাল পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থানে ভারি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে আজ রবিবার বিভিন্ন বিভাগের ওপর দিয়ে ভারি বৃষ্টি ও বজ্রঝড়ের আশঙ্কা রয়েছে। তবে সোমবার থেকে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কমে আসবে। তবে মে মাসের শেষ নগাদ বিচ্ছিন্নভাবে বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে।

আবহাওয়াবিদরা জানান, উপকূলীয় এলাকায় মেঘ নিচু হয়ে বজ্রপাতের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ফলে উপকূলে যেসব জেলেরা মাছ ধরতে সাগরে যায়, বজ্রপাত হলে তাদের ওপর বেশি প্রভাব পড়তে পারে। এ কারণে তিন নম্বর সতর্ক সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে। এছাড়া উপকূলে মাছ ধরার ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। তবে আজ বরিবারের মধ্যে এই শঙ্কা কেটে যাবে। তবে ভারি বৃষ্টিপাত হতে পারে আজও।

এদিকে দীর্ঘদিন পর শনিবার একটি শীতল দিন অতিবাহিত করেছে রাজধানীবাসী। সকাল থেকে প্রকৃতির পরিবেশ ছিল বেশ ঠান্ডা। গরমের অনুভূতি ছিল না বললেই চলে। ফলে ঈদকে সামনে রেখে অনেকটা আরাম আয়েশেই কেনাকাটা সম্পন্ন করতে পেরেছে তারা। রাজধানীর প্রত্যেক মার্কেটেই ছিল মানুষের উপচেপড়া ভিড়। রমজানের শুরু থেকে প্রচন্ড গরমের আর দাবদাহ উপক্ষো করেই সিয়াম সাধনা পালন করছেন দেশবাসী। শনিবার ঠা-া আবহাওয়ার কারণে রোজাদারদের ভোগান্তিও কম ছিল।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত রাজধানী ঢাকায় ৪১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে রাঙ্গামাটিতে সর্বোচ্চ ১০৯ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে যা দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত।