২৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কংগ্রেসকে পাশ কাটিয়ে সৌদির কাছে অস্ত্র বিক্রি

  • ট্রাম্প প্রশাসনের পদক্ষেপে আইনপ্রণেতারা ক্ষুব্ধ

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন শুক্রবার সৌদি আরব ও অন্য আরব সহযোগী দেশগুলোর কাছে ৮শ’ ১০ কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রি বিষয়ে কংগ্রেসকে উপেক্ষা করেছে। এ বিষয়ে ইরানের কাছ থেকে হুমকি রয়েছে বলে প্রশাসন উল্লেখ করেছে। প্রশাসনের এ পদক্ষেপে কংগ্রেস সদস্যরা ক্ষুব্ধ হয়েছেন। তাদের আশঙ্কা এ অস্ত্র ইয়েমেনে বেসামরিক লোকদের হত্যা করায় ব্যবহার করা হতে পারে। খবর এএফপির।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, প্রশাসন সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) ও জর্দানের কাছে ২২টি অস্ত্র-হস্তান্তর অনুমোদনের লক্ষ্যে কংগ্রেসের প্রয়োজনীয় পর্যালোচনা এড়িয়ে যাবে। পম্পেও এক বিবৃতিতে বলেন, ইরাকী আগ্রাসন নিরুৎসাহিত করতে এবং আরব মিত্রদের নিজেদের প্রতিরক্ষা সামর্থ্য গড়ে তোলার লক্ষ্যে অস্ত্রগুলো বিক্রি করা হচ্ছে। অস্ত্রগুলোর মধ্যে গোলাবারুদ ও বিমান রক্ষণাবেক্ষণ সরঞ্জামও রয়েছে। সিনেটর রবার্ট মেনেনডেজ সকালে শুক্রবার এ অস্ত্র বিক্রির কথা প্রকাশ করেন। তিনি সৌদি আরব ও ইউএইয়ে হাজার হাজার নির্দিষ্ট লক্ষ্যভেদী বোমার চালান আটকে দেয়ার জন্য তার ক্ষমতা ব্যবহার করেছেন। তার আশঙ্কা বোমাগুলো ইয়েমেনে মানবিক সঙ্কট বৃদ্ধি করবে। দেশটিতে মার্কিন সহযোগীরা আক্রমণ তৎপরতা বৃদ্ধি করেছে। সিনেট বৈদেশিক কমিটির প্রধান ডেমোক্র্যাট মেনেনডেজ এক বিবৃতিতে বলেন, আমি হতাশ হয়েছি, কিন্তু বিস্মিত হইনি। ট্রাম্প প্রশাসন আমাদের দীর্ঘ সময়ের জাতীয় নিরাপত্তা স্বার্থ বা মানবাধিকারের পক্ষে অবস্থান নেয়ার অগ্রাধিকার প্রদানে আরও একবার ব্যর্থ হলো এবং উপরন্তু, সৌদি আরবের মতো কর্তৃত্ববাদী দেশগুলোর প্রতি আনুকূল্য অনুমোদন করেছে। তিনি বলেন, প্রশাসন জরুরী প্রয়োজনে আইনগত সঙ্গ প্রদানে ব্যর্থ হয়েছে। তিনি এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে আইন-প্রণেতাদের সঙ্গে কাজ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, এর ওপর লাখ লাখ মানুষের জীবন নির্ভর করে। আরেকজন সিনিয়র ডেমোক্র্যাট সিনেটর ডায়ানে ফিনস্টিন বলেন, সৌদি আরবকে আরও অস্ত্র না দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের লাগাম টেনে ধরা উচিত। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, ইয়েমেনে সৌদি- নেতৃত্বাধীন যুদ্ধ কোন জরুরী বিষয় নয়। এ যুদ্ধ মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ। অস্ত্র বিক্রির বিরোধিতা ডেমোক্র্যাটদের মধ্যেই সীমিত নেই। কংগ্রেসে পররাষ্ট্র কমিটির সদস্য, শীর্ষস্থানীয় রিপাবলিকান মাইকেল ম্যাককাউল ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তকে ‘দুর্ভাগ্যজনক’ বলে অভিহিত করেন। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, এ উদ্যোগে ভবিষ্যতে কংগ্রেস বিষয়ক পারস্পরিক কাজ ব্যাহত হবে।

ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন যুদ্ধের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন বন্ধ করার জন্য কংগ্রেসের এক উদ্যোগে ট্রাম্পের ভেটো প্রয়োগের পর এ অস্ত্র বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ইয়েমেনে যুদ্ধে এ পর্যন্ত হাজার হাজার লোক নিহত হয়েছে এবং কয়েক লাখ মানুষ অনশনের ঝুঁকিতে রয়েছে।