২৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এক নাটকে সাত চরিত্রে খন্দকার ইসমাইল!

 এক নাটকে সাত চরিত্রে খন্দকার ইসমাইল!

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশের বরেণ্য মিডিয়া ব্যক্তিত্ব খন্দকার ইসলাম। এক সময় নাটকে অভিনয় করলেও একজন সফল উপস্থাপক হিসেবেই তিনি সুনাম কুড়িয়েছেন। তবে দীর্ঘ বিরতীর পর কিছু দিন আগে আবারও অভিনয়ে ফিরছেন তিনি। নিয়মিত অভিনয়ের ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি একটি একক নাটকে সাতটি চরিত্রে অভিনয় করে অনেকটাই চমকে দিয়েছেন তিনি। নাটকে তিনি কখনও ডাক্তার, কখনও যাত্রা শিল্পী, আবার কখনও তাকে সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে দেখা যাবে। ‘ভাড়া বাড়ি, বাড়া বাড়ি’ শিরোনামের ওই নাটকে সাতটি চরিত্রে অভিনয় করেন জনপ্রিয় উপস্থাপক ও অভিনেতা খন্দকার ইসমাইল। সম্প্রতি নাটকটির দৃশ্য ধারণে অংশগ্রহণ করেছেন বলে জানান তিনি। মানসুরা নবী ও ঝন্টু বৈদ্যর রচনায় নাটকটি নির্মাণ করেছেন তরুণ নির্মাতা নুরুন্নবী রাসেল। নাটকে আরও অভিনয় করেছেন শফিক খান দিলু, তারিক স্বপন, নুরে আলম নয়ন, রিমি করিম, নীলা ইসলাম প্রমুখ। নাটকটি আগামী ঈদ-উল আযহায় একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হবে বলে জানা গেছে।নাটকের গল্পে দেখা যাবে পরিবারের প্রধান কর্তা বাবা গ্রামের বাড়ি থাকে। তার ছেলেরা ঢাকায় থাকে। এক সময় ছেলেরা বাবাকে ঢাকার বাসায় নিয়ে যেতে চায়। বাবা কিছুতেই ঢাকা যেতে চান না। এক পর্যায়ে বাবা রেগে গিয়ে বলেন ছেলেদের টাকা তিনি নেবেন না। নিজের গ্রামের বাড়ি ভাড়া দিয়ে তিনি চলবেন। ছেলেরা তখন বিভিন্ন ছদ্মবেশে বাড়ি ভাড়া নিতে এসে বাবার সঙ্গে মজার মজার বিরক্তিতে বাবাকে অতিষ্ট করে তোলে যাতে বাবা বিরক্ত হয়ে আার বাড়ি ভাড়া দিতে না পারে। এরকম চলার পরে একটা সময় বাবা ও ছেলেদের আবেগঘন মিলনে শেষ হয় নাটক। নাটকটি প্রসঙ্গে খন্দকার ইসমাইল বলেন, আমি সাধারণ ব্যতিক্রম চরিত্রে অভিনয় করতেই স্বাচ্ছন্দবোধ করি। ‘ভাড়া বাড়ি, বাড়া বাড়ি’ নাটকের ভিন্ন ভিন্ন সাতটি চরিত্রে অভিনয় করেছি। অভিনয় করে বেশ মজা পেয়েছি। নাটকের গল্পে আমি শহরে বসবাস করি। কিন্তু আমার বাবা গ্রামেই পড়ে থাকেন। বাবা শহরে না আসায় গ্রামের মানুষ আমাকে নিয়ে নানা অপবাদ দেয়। এদিকে বাবা তার গ্রামের বাড়িটি ভাড়া দিতে চায়। বাবা যেন বাড়িটি ভাড়া দিতে না পারে তাই আমি একেক সময় একেক রূপে তার কাছে আসি। এভাবে গল্পটি এগিয়ে যায়।

প্রসঙ্গত, গেল বছরের শেষের দিকে প্রায় বিশ বছর পর অভিনয়ে ফেরেন টিভি উপস্থাপক খন্দকার ইসমাইল। এর আগে বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘সময় বহিয়া যায়’, ‘শ্রাবণে বসন্ত,’ ‘দ্বিতীয় পরমায়ু, ‘অরণ্যে রোদন’সহ কিছু নাটকে তাকে দেখা যায়। বিটিভির ম্যাগাজিন ‘বহুরূপী’, ‘আড্ডা’র উপস্থাপক ছিলেন তিনি। বর্তমানে এটিএন বাংলার ‘স্মাইল শো’ ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করছেন তিনি।