২৬ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মেসির অনন্য কীর্তি

  • টানা তিনবার গোল্ডেন বুট জয়ের স্বাদ পেলেন এলএম টেন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ স্পেনের জায়ান্ট ক্লাব বার্সিলোনাকে এবারও লা লিগার শিরোপা জেতাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন লিওনেল মেসি। কাতালানদের হয়ে লা লিগায় ৩৬ গোল করেন তিনি। তারই পুরস্কার হিসেবে রেকর্ড ষষ্ঠবারের মতো ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট জয় করেন এলএম টেন। শুধু তাই নয়, ইতিহাসের প্রথম ফুটবলার হিসেবে টানা তিনবার এই পুরস্কার জয়ের অনন্য কীর্তিও এখন বার্সিলোনার আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারের দখলে।

ইউরোপের শীর্ষ লীগে সর্বোচ্চ সংখ্যক গোলের জন্য এই পুরস্কার দেয়া হয়। এই তালিকায় এবারও সর্বোচ্চ গোল করে গোল্ডেন বুটের পুরস্কার নিজের শোকেসে তুলে নেন তিনি। প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর কিলিয়ান এমবাপেকে তিন গোলের ব্যবধানে পিছনে ফেলে গোল্ডেন বুট জয়ের স্বাদ পান এলএম টেন। লীগ ওয়ানের শেষ ম্যাচে মেসিকে টপকানোর সুযোগ ছিল ফরাসী স্ট্রাইকারের। সে জন্য এমবাপের প্রয়োজন ছিল পাঁচ গোল। কিন্তু রেইমসের বিপক্ষে ৩-১ গোলে হেরে যায় প্যারিস জায়ান্টরা। যদিওবা সেই ম্যাচে পিএসজির একমাত্র গোলটি এমবাপেই করেছেন। তবে এই গোলে মেসিকে ধরা সম্ভব হয়নি পিএসজির ফরাসী স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপের।

ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ী এমবাপেকে পেছনে ফেলে ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ গোল্ডেন বুট জিতেন মেসি। জুভেন্টাসের পর্তুগীজ সুপারস্টার ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর চেয়ে দুটি বেশি। ২০১৪-১৫ মৌসুমে সর্বশেষ এই পুরস্কার জয় করেছিলেন রোনাল্ডো। ২০১৫-১৬ মৌসুমে এই পুরস্কার জিতেন বার্সিলোনার উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ। এরপরই শুরু হয় মেসির রাজত্ব! এবারের মৌসুমে এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ও রিয়াল মাদ্রিকে পেছনে ফেলে টানা দ্বিতীয়বারের মতো বার্সিলোনাকে লা লিগার শিরোপা উপহার দেন ৩১ বছর বয়সী মেসি। আর তাতেই মেসির ভাগ্যে জুটে গোল্ডেন বুট।

গত দুই মৌসুমে লা লিগার শিরোপা জিতেছে বার্সিলোনা। শনিবারে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে কোপা ডেল’রের ফাইনাল জিতে থাকলে টানা দুই মৌসুম ঘরোয়া ‘ডাবল’ জেতার কৃতিত্বও বার্সিলোনার। কিন্তু তারপরও বার্সিলোনায় বেদনার সুর। চ্যাম্পিয়ন্স লীগটা যে জেতা হচ্ছে না কাতালানদের। ২০১৮-১৯ মৌসুমে পাকাপাকিভাবে বার্সিলোনার অধিনায়ক হন মেসি। এরপরই তিনি ঘোষণা দিয়েছিলেন, চ্যাম্পিয়ন্স লীগ শিরোপাটা ন্যুক্যাম্পে আনবেনই। কিন্তু লিভারপুলের জন্য সেটা হয়নি এবার। সেমিতে অপ্রত্যাশিতভাবে হেরে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ থেকে বিদায় নেয় বার্সা। সেই ব্যর্থতাই কুরে কুরে খাচ্ছে তাদের। এ প্রসঙ্গে লিওনেল মেসি বলেন, হারটা একদম অপ্রত্যাশিত ছিল আমাদের কাছে। অনেক বড় একটা ধাক্কা খেয়েছি আমরা। অনেক বড় ধাক্কা। ধাক্কা সামলে উঠতে অনেক সময় লেগেছে আমাদের। আমরা অনেক বাজে খেলেছি। এমন বাজেভাবে এক বছর হারা যায়। কিন্তু টানা দুই বছর একইভাবে হারার কোন ব্যাখ্যা থাকে না। টানা দুই বছর চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে ওঠার সম্ভাবনা ছিল আমাদের, সুযোগগুলো আমরাই হারিয়েছি। বার্সিলোনার প্রাণভোমরা মেসি এ সময় আরও বলেন, আমি বলিনি আমি সেই সুন্দর ট্রফিটা অবশ্যই নিয়ে আসব। আমি বলেছি আমরা সেই সুন্দর ট্রফিটা বার্সায় নিয়ে আসার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করব, যা যা করার দরকার সব করব। কিন্তু দ্বিতীয় লেগে আমরা সেটা করতে পারিনি। যথেষ্ট বাজে খেলেছি। দ্বিতীয় লেগে লিভারপুলের সঙ্গে কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতাই করতে পারিনি। আর এর জন্য সমর্থকদের কাছে আমাদের ক্ষমা চাইতে হবে। আমরা ক্ষমাপ্রার্থী।