২৫ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিলেটের চেঙ্গেরখাল নদীতে লাখ টাকা চাঁদাবাজি

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ সিলেটের চেঙ্গেরখাল নদীতে পাথর ও বালুবাহী নৌকা ও কার্গো থেকে প্রতিদিন লক্ষাধিক টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে। প্রতিদিন প্রায় দেড় শতাধিক নৌকা চেঙ্গেরখাল নদীর সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়ন এলাকা অতিক্রম করার সময় নৌকা ও কার্গো থেকে জোরপূর্বক চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। চাঁদা না দিলে মাস্তান চক্র মাল বোঝাই নৌকা ও কার্গো আটকে রেখে দেয়। এতে বাধ্য হয়ে তারা চাঁদা দিয়ে মুক্ত হয়ে যান। ভুক্তভোগীরা জানান প্রভাবশালী চক্র প্রশাসনকে ম্যানেজ করে তারা এই চাঁদাবাজি চালিয়ে যাচ্ছে। নেতৃত্বে রয়েছেন স্থানীয় এক ইউপি চেয়ারম্যান। কোন প্রকার ইজারা ছাড়াই স্থানীয় সরকার বিভাগের নামে টোকেন দিয়ে নদীর জালালাবাদ ইউনিয়নের কালারুকা ইলঙ্গির বিলের কাড়া নামক স্থানে এই চাঁদাবাজি চলছে।

প্রতিদিন এই সকল নৌকা ও কার্গো ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বালু ও পাথর সরবরাহ করে থাকে। গত ৫ মে থেকে হঠাৎ করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের ১৫/২০ জনের একটি চক্র সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে ট্যাক্স আদায় শুরু করে। একটি নৌযান থেকে প্রতিদিন ১০০০/১৫০০ টাকা আদায় করা হচ্ছে। আবার চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে নৌকার মাঝিসহ শ্রমিকদের মারধরের ঘটনা ঘটছে। চালকরা জানান, চাঁদার টাকা নিয়ে টোল আদায়ের রশিদ ‘স্থানীয় সরকার বিভাগ সচিবালয় ঢাকা’ লেখা একটি স্লিপ ধরিয়ে দেয়া হয়। এমভি মিরাকা-৬ এর মালিক মতিন মাতব্বর বলেন, এভাবে নতুন নতুন জায়গায় চাঁদাবাজি বাড়তে থাকলে আমাদের সিলেটকেন্দ্রিক ব্যবসা বন্ধ করে দিতে হবে। তিনি চাঁদা না দেয়ায় তার কার্গো এক ঘণ্টা আটকে রাখা হয়েছিল বলে জানান। এরপর ব্যবসার স্বার্থে তার চালক চাঁদা দিতে বাধ্য হন। স্থানীয়রা জানান চাঁদাবাজির বিষয়টি জালালাবাদ থানার ওসিকে অবহিত করলেও রহস্যজনক কারণে কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।