২৫ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিলেটে দুই পরিবারকে সমাজচ্যুত করে হয়রানি

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ বালাগঞ্জে দুটি পরিবারকে সমাজচ্যুত করে রাখার অভিযোগ উঠেছে। ভূমি দখলের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে প্রভাবশালী ফারুক মিয়া গং উপজেলার রুপিয়া গ্রামের দুটি পরিবারকে সমাজচ্যুত ও একটি পরিবারের গৃহকর্তাকে হত্যা মামলায় জড়ানোর অভিযোগ করেছেন হয়রানির শিকার পরিবারের লোকেরা। রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে একঘরে থাকা ওই গ্রামের বাসিন্দা এনামুল হক ও ছমির মিয়া। লিখিত বক্তব্যে জানান, গ্রামের প্রভাবশালী লোক ফারুক মিয়া জায়গা দখলে ব্যর্থ হয়ে এনামুলের পরিবারকে একঘরে করে রাখেন। তিন কন্যাসন্তানকে মক্তবে যেতে নিষেধ করেছেন। তার সঙ্গে সম্পর্কের কারণে একই এলাকার ছমির মিয়ার পরিবারকেও সমাজচ্যুত করে রেখেছে ফারুক গং। তাদের পরিবারে শিরনি দেয়ার কারণে এলাকার ছালিক মিয়ার মেয়েকে মারধর করে ওই পরিবারকেও সমাজচ্যুত করে রাখেন। এ ঘটনায় ছালিক মিয়া থানায় মামলাও দায়ের করেছেন। লিখিত বক্তব্যে এনামুল বলেন, তিনি নিজে ওষুধ কোম্পানির একজন বিক্রয় প্রতিনিধি। এসব ঘটনার প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ জানালেও প্রতিকার মিলেনি। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান- মেম্বারদের অবহিত করলেও তারাও ফারুক গংকে দমাতে পারেননি। উপরন্তু ফারুক মিয়া তার বিরুদ্ধে ১০৭ ও ১১৭ ধারায় থানায় মামলা দায়ের করেন। তদন্তে নির্দোষ দেখিয়ে আদালতে প্রসিকিউশন দেয় পুলিশ। ফারুক গং এনামুলদের নামাজ পড়তেও বাধা প্রদান করে। এছাড়া গত ৩০ এপ্রিল একই গ্রামের মরহুম লাল মিয়ার মৃত্যুর চল্লিশ দিনের শিরনি ও দোয়া মাহফিল উপলক্ষে তেলাওয়াত করতে যায় ছমির মিয়ার ভাতিজা তুহিন মিয়া। ওই সময় পঞ্চায়েতের বাদ দেখিয়ে গালিগালাজ করে তুহিনকে তেলাওয়াত থেকে উঠিয়ে দেন ফারুক। এছাড়া বিভিন্ন সময় হামলার চেষ্টা করে ফারুক গং।