১৯ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অঘটনে শুরু ফ্রেঞ্চ ওপেন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ রবিবার পর্দা উঠলো ফ্রেঞ্চ ওপেনের। প্রথমদিনেই অঘটন দেখল মৌসুমের এই দ্বিতীয় গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্ট। টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিলেন এ্যাঞ্জেলিক কারবার। জার্মান তারকাকে হারিয়ে রীতিমতো চমকে দেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের ৮১ নম্বরের খেলোয়াড় এ্যানাস্তাসিয়া পোতাপোভা। এদিন তিনি ৬-৪ এবং ৬-২ গেমে পরাজিত করেন টুর্নামেন্টের পঞ্চম বাছাই এ্যাঞ্জেলিক কারবারকে। জার্মান তারকা বিদায় নিলেও বেঁচে গেলেন গারবিন মুগুরুজা। টেইলর টাউনসেন্ডের বিপক্ষে স্প্যানিশ টেনিস তারকা এদিন প্রথম সেট হেরে গেলেও পরের দুই সেট জিতে ফ্রেঞ্চ ওপেনের মিশন শুরু করেন। কঠিন লড়াইয়ের পর তিনি ৫-৭, ৬-২ এবং ৬-২ গেমে হারান টেইলর টাউনসেন্ডকে।

অথচ মাত্র ১৮ বছর বয়স পোতাপোভার। বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ ১০ নম্বরে থাকা খেলোয়াড়দের বিপক্ষে এটা তার দ্বিতীয় ম্যাচ। এই ম্যাচেই বাজিমাত করেন তিনি। ৭৩ মিনিটেই এ্যাঞ্জেলিক কারবারকে হারিয়ে ফ্রেঞ্চ ওপেনের দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকেট নিশ্চিত করেন পোতাপোভা। ফ্রেঞ্চ ওপেনে এবারই প্রথমবার অংশ নেন রাশিয়ান তারকা। দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে তার প্রতিপক্ষ হয় চীনের ওয়াং ইয়াফান অথবা চেক প্রজাতন্ত্রের মার্কেটা ভোন্ড্রোসোভা।

ফ্রেঞ্চ ওপেনে কারবারের পারফর্মেন্স সবসময়ই নিষ্প্রভ। শেষ চারবারের তিনবারই টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায় নিয়েছেন তিনি। এবার আরও খারাপ সময় পার করে রোঁলা গ্যাঁরোর কোর্টে নেমেছিলেন কারবার। ফর্মহীনতার সঙ্গে তার বাধা ছিল ইনজুরিও। কেননা গোড়ালির ইনজুরির কারণে যে মাদ্রিদ ওপেন এমনকি রোম মাস্টার্স থেকেও সরে দাঁড়ান তিনি। প্যারিস যাত্রার আগে মাত্র তিনটি ম্যাচ খেলেছেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের সাবেক এই নাম্বার ওয়ান। শুধু তাই নয়, ফ্রেঞ্চ ওপেন শুরুর মাত্র দুই সপ্তাহ আগেও এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ নিয়ে অনিশ্চয়তার ভেলায় ভাসছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত খেলার সিদ্ধান্ত নেন কারবার। তবে প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায়ের পর জানালেন, তার না খেলার সিদ্ধান্তটাই সঠিক ছিল। এ প্রসঙ্গে তিনবারের গ্র্যান্ডস্লাম জয়ী এ্যাঞ্জেলিক কারবার বলেন, ‘শেষের দিকে এই টুর্নামেন্ট নিয়ে আমার খুব বেশি প্রত্যাশা ছিল না। এখন মনে হচ্ছে, আমার না খেলার সেই সিদ্ধান্তটাই সঠিক ছিল।’

তবে কারবার জানালেন, হারলেও অন্তত কোর্টে নামতে পারাটাও তারজন্য সন্তুষ্টির খবর। এ বিষয়ে জার্মান তারকার অভিমত, ‘সত্যি কথা বলতে গত কয়েকদিন খুব ভালভাবেই অনুশীলন করেছি। কিন্তু ক্লে-কোর্টের জন্য এটা মোটেও যথেষ্ট ছিল না। তবে শেষ কথা, টুর্নামেন্টের কোর্টে নামতে পারা এবং একটা ম্যাচ খেলাও আমার জন্য বেশ আনন্দের। যদিওবা আমার প্রত্যাশিত কিছুই হয়নি। তবে এই ম্যাচে হেরে যাওয়ার পর আমি মোটেও কোন কিছুর ওপর দায় দিচ্ছি না। বরং আমি আমার সেরাটা দিয়েই চেষ্টা করেছি।’ টেনিস কোর্টে ২০১৬ সালটা দারুণ কেটেছিল কারবারের। সে মৌসুমেই প্রথম এবং শেষ দুই গ্র্যান্ডস্লামের চ্যাম্পিয়ন হয়ে বাজিমাত করেন তিনি। সেই সঙ্গে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থানটাও দখল করে নিয়েছিলেন এ্যাঞ্জেলিক কারবার। গত মৌসুমে জিতেছিলেন উইম্বলডনও। এবার তার সামনে ছিল চার গ্র্যান্ডস্লামের সকটিতেই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার হাতছানি। কিন্তু সেই পথে কাঁটা হয়ে দাঁড়ালেন রাশিয়ান টেনিসের প্রতিভাবান খেলোয়াড় এ্যানাস্তাসিয়া পোতাপোভা।

এদিকে প্রথম সেট জিতে গারবিন মুগুরুজার সমর্থকদেরও হতাশায় ফেলে দিয়েছিলেন আমেরিকার টেইলর টাউনসেন্ড। স্প্যানিশ টেনিস তারকার বিপক্ষে প্রথম সেট ৭-৫ ব্যবধানে জিতে নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দ্বিতীয় সেটেই ঘুরে দাঁড়ান মুগুরুজা। ৬-২ ব্যবধানে জিতে ম্যাচে ফিরেন ফ্রেঞ্চ ওপেনের সাবেক চ্যাম্পিয়ন। দাপট দেখিয়ে ৬-২ ব্যবধানে তৃতীয় সেটও জিতে নেন গারবিন মুগুরুজা। সেই সঙ্গে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় রাউন্ডে জায়গা করে নেন তিনি।

নির্বাচিত সংবাদ