১৮ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বৃহস্পতিবার শপথ নেবেন নরেন্দ্র মোদি

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দ্বিতীয় মেয়াদে বৃহস্পতিবার শপথ গ্রহণ করবেন। রাষ্ট্রপতি ভবনে ওই দিন সন্ধ্যা সাতটায় এই শপথ অনুষ্ঠিত হবে। টুইটারে এই তথ্য জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এ খবর জানিয়েছে। খবর এনডিটিভির।

শনিবার রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাত কেন্দ্রে সরকার গঠনের দাবি জানিয়েছিলেন মোদি। বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট বৃহস্পতিবার ভোট গণনায় পেয়েছে ৩৫২টি আসন। মোদির দ্বিতীয় সরকারের মন্ত্রীদের নাম এখনও প্রকাশ করা হয়নি। তবে রাষ্ট্রপতির টুইটে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে, শপথ অনুষ্ঠানে মন্ত্রীরাও থাকতে পারেন। সরকারের পক্ষ থেকে শপথ অনুষ্ঠানের অতিথিদের নামও জানানো হয়নি। এর আগে ২০১৪ সালে প্রথম শপথ গ্রহণের সময় মোদি সার্কভুক্ত দেশগুলোর রাষ্ট্রনেতাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। নতুন মন্ত্রিসভায় এবার মোদি ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ শপথ অনুষ্ঠানে নতুন মুখ নিয়ে আসতে পারেন। যদিও মোদি এখনও স্বরাষ্ট্র, অর্থ, পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব কাদের দেয়া হবে সেই বিষয়ে কোন ইঙ্গিত দেননি। উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার ভারতের ৫৪৩ আসনের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এতে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট ৩৫২ আসনে জয় নিয়ে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়। শনিবার পার্লামেন্ট ভবনের সেন্টার হলে এনডিএ জোটের আইন প্রণেতাদের বৈঠকে নেতা নির্বাচিত হন নরেন্দ্র মোদি। পরে ওইদিন রাতেই তিনি জোটসঙ্গীদের নিয়ে রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দের সঙ্গে সাক্ষাত করে সরকার গঠনের দাবি করেন। পরে রাষ্ট্রপতি তাকে শপথের দিন নির্ধারণ ও মন্ত্রিসভার সদস্যদের নাম পাঠাতে বলেন।

মোদিকে শান্তির বার্তা ইমরানের ॥ ভারতে লোকসভা নির্বাচনের ভোটের ফল প্রকাশের দিন টুইট করে ভাবী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এবার ফোন করে মোদিকে ফের শুভেচ্ছা জানানোসহ শান্তির বার্তা দিয়েছেন তিনি।

রবিবার ইমরান খান ফোন করে মোদিকে তার নির্বাচনী জয়ের জন্য অভিনন্দন জানান এবং বলেন, দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য তিনি মোদির সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে চান। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মোদিও তাকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানানোর জন্য পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। প্রতিবেশীদের অগ্রাধিকার দেয়ার সরকারী নীতির কথা মাথায় রেখে মোদি পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরানকে মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই সবার আগে লড়তে হবে দারিদ্র্য দূরীকরণের জন্য। তাছাড়া, এ অঞ্চলে শান্তি, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য যে পারস্পরিক বিশ্বাস বাড়ানো আর সন্ত্রাস, সহিংসতা বন্ধ করাই সবচেয়ে বেশি জরুরী সে কথাও পাকি প্রধানমন্ত্রীকে বলছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। পরে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ ফয়সাল এক টুইটে মোদিকে অভিনন্দন জানিয়ে ইমরানের ফোন করার খবর জানিয়ে বলেছে, ইমরান খান দক্ষিণ এশিয়ায় তার শান্তি, সমৃদ্ধির প্রতিষ্ঠার দূরদৃষ্টির কথাই ফের মোদিকে বলেছেন এবং এ নিয়ে মোদির সঙ্গে কাজ করতে মুখিয়ে আছেন।

নির্বাচিত সংবাদ