২৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঈদের একাধিক নৃত্যানুষ্ঠানে সাদিয়া মির্জা

ঈদের একাধিক নৃত্যানুষ্ঠানে সাদিয়া মির্জা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম মেধাবী অভিনেত্রী সাদিয়া মির্জা। বড় পর্দার পাশাপাশি ছোট পর্দাতেও নিয়মিত অভিনয় করেন। তবে সাদিয়া মূলত একজন নৃত্যশিল্পী হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। কারণ ছোটবেলা থেকেই নাচের অনুশীলন করে আসছেন। এখনও নিয়মিত নাচের অনুশীলন করেন।

টিভি নাটক, টেলিফিল্ম এবং চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি নিয়মিতভাবে বিভিন্ন চ্যানেলে নৃত্যানুষ্ঠানেও অংশ নিয়ে থাকেন সাদিয়া মির্জা। এরই ধারাবাহিকতায় এবারের ঈদে বিভিন্ন চ্যানেলে একাধিক নাচের অনুষ্ঠানে পারফর্ম করেছেন তিনি। বলা যায় এবারের ঈদে তার ব্যস্ততম সময় কেটেছে নাচের অনুষ্ঠানের শূটিং ও পারফর্ম নিয়ে। সাদিয়া জান এই ঈদে চ্যানেল আই ও মাইটিভির বিশেষ নৃত্যানুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন তিনি। দুই চ্যানেলের নৃত্যানুষ্ঠান প্রচারের পর অনেকেই সাদিয়ার প্রশংসা করেছেন। এতে অত্যন্ত আনন্দিত সাদিয়া। অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি নাচটাকেও চালিয়ে নিতে চান।

এ প্রসঙ্গে চিত্রনায়িকা সাদিয়া মির্জা বলেন, ছোটবেলা থেকেই জামালপুর শিল্পকলা একাডেমিতে ক্লাসিক্যাল নৃত্যের ওপর কোর্স করেছি। সেখানে আমার নাচের শিক্ষক ছিলেন শামীম আরা আপা আর বাবু ভাই। চ্যানেল আই ক্যামেরার সামনে আমার নাচের শিক্ষকদের খুব মনে পড়ছিল। মনে হচ্ছিল ইস! তারা যদি এখানে থাকতেন কত খুশিই না হতেন; ধরে ধরে তারা আমাকে শিল্পকলায় আর বর্তমানে মিজানুর রহমান লেমন ভাইও রোজা রেখে নাচ করিয়েছেন। সকালে রোজা রেখে আমি আর লিমন ভাই গিয়েছিলাম নারায়ণগঞ্জ চাষাঢ়ায়।

কারণ সেখান থেকে আমাদের একটা গ্রুপ নিয়েছি আমাদের সঙ্গে নাচের জন্য। গ্রুপ ছাড়া প্রাকটিস করলে তো হবে না। রোজার মাসে গরমের মধ্যে সকাল করে গিয়েছি আর বিকেলের মধ্যে রওয়ানা দিয়ে বাসায় ইফতার করেছি। কারণ পরিবার জানত না আমি এতদূর গিয়ে রিহার্সেল করেছি। লুকিয়ে লুকিয়ে গিয়ে ইফতার করেছি।

আবার ইফতার করে নামাজ পড়েই চলে গেছি ইমরান ড্যান্স একাডেমিতে আরেকটি প্রাকটিসের জন্য। রাতে বাসায় ফিরেছি ক্লান্ত হয়ে। এতটা কষ্ট হয়েছে কাউকে বোঝাতে পারব না। তবে নাচ শেষে চ্যানেল আইয়ের সবাই যখন অনেক প্রশংসা করছিল তখন মনে হয়েছে সব শ্রম স্বার্থক হয়েছে।