১৮ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাকিস্তানকে ৩০৮ রানের টার্গেট দিল অস্ট্রেলিয়া

পাকিস্তানকে ৩০৮ রানের টার্গেট দিল অস্ট্রেলিয়া

অনলাইন রিপোর্টার ॥ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের ১৭তম ম্যাচে পাকিস্তানের সামনে ৩০৮ রানের টার্গেট দাঁড় করিয়ে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। নির্ধারিত ৪৯ ওভারে সব কয়টি উইকেট হারিয়ে ৩০৭ রান তুলতে সক্ষম হয় স্মিথরা। এ ম্যাচে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৫তম সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। আরেক ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ ফিফটির দেখা পেয়েছেন।

বুধবার ইংল্যান্ডের টনটন শহরে অবস্থিত ক্রিকেট স্টেডিয়াম কাউন্টি গ্রাউন্ডে টস জিতে অজিদের ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। ম্যাচটি শুরু হয় বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায়। সরাসরি সম্প্রচার করছে মাছরাঙা চ্যানেল ও গাজী টিভি।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা দারুণ করে দুই অজি ওপেনার ফিঞ্চ ও ওয়ার্নার। দলীয় ১৪৬ রানে প্রথম উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। ইনিংসের ২৩তম ওভারের প্রথম বলে অজি ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চকে ক্যাচ আউট করে সাজঘরে ফেরান পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ আমির। সাজঘরে ফেরার আগে ৮৪ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৮২ রান করেছেন অজি অধিনায়ক।

অ্যারন ফিঞ্চের বিদায়ের পরপরই সাজঘরে ফিরেছেন স্টিভেন স্মিথ। শট খেলতে গিয়ে মোহাম্মদ হাফিজের বলে আসিফ আলীকে ক্যাচ তুলে দেন সাবেক এই অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক। ১৩ বল এক চারে ১০ রান করেছেন তিনি।

এরপর ঝড় তুলতে চেয়েছিলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ১০ বলেই ২০ রান করে ফেলা এই ব্যাটসম্যানকে বোল্ড করেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। তবে একটা প্রান্ত আগলে রেখে ঠিকই দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। ১০২ বলেই তুলে ফেলেন সেঞ্চুরি, শেষ পর্যন্ত মারকুটে এই ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফেরত পাঠান শাহীন আফ্রিদি।

পাকিস্তানি পেসারকে তুলে মারতে চেয়েছিলেন ওয়ার্নার। আকাশে ভাসা বল তালুবন্দী করেন ইমাম উল হক। ১১১ বলে ১১ বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় গড়া অসি ওপেনারের ১০৭ রানের ইনিংসটি থামে তাতেই।

শন মার্শ ২৬ বলে করেন ২৩ রান। উসমান খাজা ১৬ বলে করেন ১৮ রান। কোল্টার নাইলের ব্যাট থেকে আসে ২ রান। অ্যালেক্স ক্যারি ২১ বলে করেন ২০ রান। পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ আমির ১০ ওভারে ৩০ রান দিয়ে তুলে নেন ৫টি উইকেট। দুটি উইকেট পান শাহিন শাহ আফ্রিদি। একটি করে উইকেট পান হাসান আলি, ওয়াহাব রিয়াজ এবং মোহাম্মদ হাফিজ।

১০ ওভারে ২ মেডেনসহ ৩০ রান খরচায় ৫টি উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ আমির। ২টি উইকেট শিকার শাহীন শাহ আফ্রিদির।

নির্বাচিত সংবাদ