১৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জুলাইয়ে মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জুলাই মাসে সারাদেশব্যাপী পালিত হবে ‘জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৯’ যার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার মৎস্য ভবনের সম্মেলন কক্ষে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরুর সভাপতিত্বে মৎস্য সপ্তাহের কর্মসূচী প্রণয়ন সংক্রান্ত এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় একথা জানানো হয়।

মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি পাওয়া গেলেও অনুষ্ঠানের নির্দিষ্ট তারিখ ও স্থান এখনও নির্ধারিত হয়নি এবং তা শীঘ্র জানানো হবে বলেও সভায় জানানো হয়। তবে আন্তঃমন্ত্রণাল সভায় মৎস্য সপ্তাহের বিস্তারিত কর্মসূচী প্রণয়ন করা হয়। সভায় সপ্তাহের জন্য ‘মাছচাষে গড়বো দেশ/বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ শীর্ষক একটি জাতীয় স্লোগানও নির্ধারণ করা হয়েছে বলেও জানা গেছে।

সূচী অনুযায়ী প্রথমদিন সকালে ঢাকা মহানগরে সড়ক র‌্যালি এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রেসব্রিফিং অনুষ্ঠিত হবে। দ্বিতীয় দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। এদিন ঢাকায় পাঁচ দিনব্যাপী এবং প্রতি জেলায় তিনদিন করে ‘মৎস্যমেলা’ শুরু হবে। ঢাকা ও ময়মনসিংহে পৃথক পৃথক ‘প্রযুক্তি-মৎস্যমেলা’ অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সপ্তাহ চলাকালে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় সংসদের স্পীকার কর্তৃক যথাক্রমে বঙ্গভবন, গণভবন ও জাতীয় সংসদের লেকে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হবে। ধানমন্ডি লেক, ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, শেরেবাংলা নগর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ লেক ও পুকুরসমূহেও পোনা অবমুক্ত করা হবে। এছাড়া দেশব্যাপী বিভিন্ন পুকুর, মুক্তজলাশয়, হাওড়-বাঁওর প্রভৃতিতে ব্যাপকভাবে পোনা ছাড়া হবে। সপ্তাহের অংশ হিসেবে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্নস্থানে র‌্যালি, সেমিনার, সিম্পোজিয়াম, সভা, প্রামাণ্য চিত্রপ্রদর্শনীর মাধ্যমে ব্যাপক প্রচার চালিয়ে গণসচেতনতা সৃষ্টি করা হবে।

আন্তঃমন্ত্রণাল সভায় জনপ্রশাসন, ভূমি, পানিসম্পদ, তথ্য মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ছাড়াও মৎস্য মন্ত্রণালয়ের সচিব রইছউল আলম মন্ডল, মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান দিলদার আহমদ, মৎস্য অধিদফতরের ডিজি আবু সাইদ মোঃ রাশেদুল হক, মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের ডিজি ড ইয়াহিয়া মাহমুদসহ উর্ধতন কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন।