১৮ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শোবিজে ক্রিকেট মেনিয়া

  • সাদিকা পারভীন পপি

‘এবারের ঈদ ছিল আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ ঈদ। কারণ, আমার ভাই মারা গেছে। যার কারণে খুব কষ্ট হচ্ছে। তাই সেভাবে খেলাও দেখতে পারছি না। সব সময় টাইগারদের জন্য শুভ কামনা। তবুও বলব বাংলাদেশের খেলা নিয়ে অনেকে ভাল-মন্দ কথা বললেও আমি মনে করি বাংলাদেশ এখন শক্তিশালী একটা টিম। আগের চেয়ে অনেক ভাল খেলে বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম। ইংল্যান্ডের কাছে হেরে গেলেও আমরা সাকিব আল হাসানের একটি দুর্দান্ত সেঞ্চুরি পেয়েছি। সামনে বেশ কয়েকটি খেলা বাকি আছে। মাশরাফি, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সৌম্যর মতো ভাল ব্যাটসম্যানরা রয়েছে আমাদের। তাই আমাদের এখন ভয় নেই। টাইগাররা আমাদের সামনে জয়ের খবরই দেবেন।’

আইরিন সুলতানা

আগামী খেলাগুলোর জন্য জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী শুভকামনা জানালেন দলের খেলোয়াড়দের। তিনি বললেন, ‘বিশ্বকাপের প্রতিটি খেলাই দেখার চেষ্টা করি। হারলেও বাংলাদেশ জিতলেও বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সামনের খেলাগুলোতে আরও ভাল করবে। সবার জন্য রইল অভিনন্দন এবং বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের বড় সাফল্য দেখার জন্য উদ্গ্রীবও’

পূজা চেরি

ঈদের ছুটি কাটিয়ে শূটিং নিয়ে ব্যস্ততা যাচ্ছে। শূটিংয়ের ফাঁকে ফাঁকে এবারের বিশ্বকাপের খেলাগুলো দেখার চেষ্টা করছি। বাংলাদেশের পছন্দের খেলোয়াড় মাশরাফি ভাইয়া, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ভাইসহ সবাই খুব ভাল খেলে। বাংলাদেশ দলের পর পূজার পছন্দের তালিকায় রয়েছে ভারত। এই দুই দলের খেলাই পছন্দ করেন তিনি। বললেন, ‘বাংলাদেশের সবাই খুব ভাল খেলে। আমার প্রিয় খেলোয়াড় মাশরাফি ভাই। আর ভারতের প্রিয় খেলোয়াড় মহেন্দ্র সিং ধোনি ও বিরাট কোহলি। বাংলাদেশের শুরুটা বেশ ভালভাবেই হয়েছিল। কিন্তু মাঝে একটু খারাপ সময় গিয়েছে। আশা রাখি সামনে ভাল করবে।

আব্দুন নুর সজল

ব্যস্ততার মাঝে সময় করে খেলা দেখার চেষ্টা করছি। বাংলাদেশের দলের সবাই ভাল খেলেন। সজলের সবচেয়ে বেশি ভাললাগে ক্যাপ্টেন মাশরাফির খেলা। বললেন, ‘মুশফিকুর রহিম, সাকিব, তামিম সবাই ভাল খেলেন। টাইগারদের জন্য শুভ কামনা।’

বিদ্যা সিনহা মিম

পরিবারসহ একসঙ্গে খেলা দেখছেন বিদ্যা সিনহা মিমও। তার বাবা ক্রিকেট পাগল মানুষ। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের সঙ্গে একটি চকোলেটের বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন মিম। তিনি জানালেন, ‘সাকিব তো নিঃসন্দেহে ভাল খেলোয়াড়, কাজ করতে গিয়ে দেখলাম ব্যক্তিগত জীবনেও মিশুক তিনি। তার পারফর্মেন্সে আমি খুশি।’

সায়মন সাদিক

সায়মন সাদিক কৈশোর থেকেই ক্রিকেটপ্রেমী। নিজেও ক্রিকেট খেলেছেন। মাশরাফি, সাকিব ও মুশফিক তার পছন্দের খেলোয়াড়। সায়মনের মতে, ‘তারা প্রত্যেকে জ্বলে ওঠার ক্ষমতা রাখেন। তাদের জন্য শুভকামনা। বাংলাদেশের খেলা মানেই বুকের মাঝে বাংলাদেশ।’

জয়া আহসান

এবারের বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ১০ দেশের দুজন তারকা প্রতিনিধির অংশগ্রহণে এক স্ট্রিট ক্রিকেটের আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশের প্রতিনিধি হিসেবে এ আসরে জয়া আহসানের সঙ্গে ছিলেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার আব্দুর রাজ্জাক। জয়া বলেন- ‘বিশ্বকাপের আসরে দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে উত্তেজনা অনুভব করছি।’

শ্যামল মওলা

‘ক্রিকেট আমার অনেক প্রিয় খেলা। এবার আমাদের ক্রিকেট টিম অনেক বেশি শক্তিশালী। তাই এবার বিশ্বকাপ ক্রিকেট নিয়ে উত্তেজনাটা স্বাভাবিকভাবেই বেশি। আমাদের টাইগারদের কাছে প্রত্যাশাও এবার অনেক বেশি। বাংলাদেশের সবক’টি খেলাত দেখবোই, বাকি খেলাগুলোও মিস করব না। আশা করব মাশরাফি সাকিবসহ দলের সব খেলোয়াড়ের নৈপুণ্যেই এবারের বিশ্বকাপে চমক সৃষ্টি করবে বাংলাদেশ।’

নির্বাচিত সংবাদ