২৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জুভেন্টাসে ফিরছেন পগবা!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা মিডফিল্ডার পল পগবা। রাশিয়া বিশ্বকাপেও প্রমাণ দিয়েছেন তিনি। ২০১৬ সালে ১১০ মিলিয়ন ইউএস ডলারের বিনিময়ে জুভেন্টাস থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেন ফ্রান্সের এই তারকা ফুটবলার। তবে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে নিজের দ্বিতীয় স্পেলে মোটেও সুবিধে করতে পারেননি তিনি। যে কারণেই ম্যানইউ ছেড়ে আবারও জুভেন্টাসে যেতে চান ২৬ বছরের এই প্রতিভাবান ফুটবলার। ইতালির ‘কোরিয়ের ডেল্লো স্পোর্ট’ তাদের এক প্রতিবেদনে ঠিক এমনটাই জানিয়েছে।

তাদের দাবি, পল পগবা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে আবারও জুভেন্টাসে যেতে রাজি হয়েছে। তবে পগবাকে দলে ভেড়ানোর জন্য দলের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়কে বিক্রি করতে চায় ইতালিয়ান সিরি এ লীগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। বিশেষ করে মারিও মানজুকিচ, জোয়াও কানসেলো, জুয়ান কুয়দ্রাদো এবং মাত্তিয়া পেরিনকে বিক্রির বিষয়ে আগ্রহী তারা। জুভেন্টাসে এই মুহূর্তে কোচহীন। ম্যাসিমিলিয়ানো এ্যালেগ্রি জুভেন্টাস ছাড়লে এখন পর্যন্ত নতুন কাউকে নিয়োগ দেয়নি ক্লাবটি। তবে গণমাধ্যমের গুঞ্জন চেলসির কোচ মাউরিসিও সারি কিছুদিনের মধ্যেই যোগ দেবেন জুভেন্টাসে। আর কোচ যোগ দেয়ার পরেই গ্রীষ্মকালীন দল বদলে খেলোয়াড় কেনার মিশন শুরু করবে সিরি এ লীগে দাপট দেখানো জুভেন্টাস।

এদিকে, ইসলাম এবং নিয়মিত নামাজ পড়া পল পগবাকে বদলে দিয়েছে। এ প্রসঙ্গে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এই মিডফিল্ডার জানিয়েছেন, তাকে আরও ভাল মানুষ হওয়ার ক্ষেত্রে সাহায্য করেছে ইসলাম। ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য ইনডিপেনডেন্ট জানিয়েছে, পগবা মনে করেন বিশ্বে ইসলামকে ভুলভাবে দেখা হয়। বিশ্বকাপ জয়ী ফ্রান্সের অন্যতম ফুটবলার পগবা সম্প্রতি নিজের ধর্মীয় চর্চা নিয়ে কথা বলেন গণমাধ্যমে। পগবা বলেন, ‘সবাই যেভাবে দেখছেন ইসলাম সে রকম না। আমরা গণমাধ্যমে যা শুনি তা ভিন্ন কিছু। ইসলাম খুবই সুন্দর।’

একটা কঠিন সময় গেছে পগবার। তখন থেকেই ধর্মচর্চায় মন দেন তিনি। কিছুদিন আগে হজও করে এসেছেন ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী এই ফুটবলার পগবা বলেন, ‘ইসলাম জীবন সম্পর্কে আমার ধারণা বদলে দিয়েছে। আমার ভেতরে শান্তি এনে দিয়েছে। এটা আমার জীবনে ভাল একটা পরিবর্তন এনে দিয়েছে। আমার অনেক বন্ধুবান্ধব আছে যারা মুসলমান। আমরা সব সময় কথা বলি। আমি নিজেকেও প্রশ্ন করি। আমি আমার বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে একবার নামাজ পড়ি। তারপর বুঝতে পারি অন্য রকম লাগছে। আমার খুব ভাল লাগছিল। তারপর থেকে আমি শুরু করি। নামাজ ইসলামের মূল স্তম্ভ। আপনি ক্ষমা চাইছেন, সবার জন্য দোয়া করছেন।’ পল পগবা এসময় আরও বলেন, ‘ইসলাম আমার চোখ খুলে দিয়েছে। আমাকে ভাল মানুষে পরিণত করেছে। ইসলাম মানবতাকে শ্রদ্ধা করে।’

গ্রীষ্মকালীন দলবদলে আলোচনার তুঙ্গে রয়েছেন জোয়াও ফেলিক্সও। বয়স মাত্র ১৯। অথচ এই সময়েই বিশ্ব ক্লাব ফুটবলে অন্যতম সম্পদে পরিণত করে ফেলেছেন নিজেকে। বর্তমানে বেনফিকার জার্সিতে খেলছেন পর্তুগালের তরুণ প্রতিভাবান এই ফুটবলার। কিন্তু তাকে দলে ভেড়াতে মরিয়া ইউরোপের শীর্ষ সারির ক্লাবগুলো। বিশেষ করে ম্যানচেস্টার সিটি আর রিয়াল মাদ্রিদ তাকে দলে ভেড়াতে মরিয়া। তবে রিয়ালের চেয়েও এই দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।

বেনফিকার চেয়ারম্যান ইতোমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন যে, এই গ্রীষ্মেই ফেলিক্সকে বিক্রি করে দেবেন তারা। সেই সুযোগটাই কাজে লাগাতে চায় ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। পর্তুগীজ গণমাধ্যমের দাবি, ফেলিক্সকে কেনার জন্য ম্যানচেস্টার সিটি ৩৩.৭ মিলিয়ন ইউএস ডলার দিতেও রাজি। তরুণ প্রতিভাবান এই মিডফিল্ডারের সঙ্গে আগামী পাঁচ বছরের জন্য চুক্তি স্বাক্ষর করতে চায় পেপ গার্দিওলার দল। ফেলিক্সকে পেতে আগ্রহী ম্যানসিটির নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও। সদ্যসমাপ্ত উয়েফা ন্যাশন্স লীগের শিরোপা জিতেছে পর্তুগাল। আর এই শিরোপাজয়ী দলেও ছিলেন জোয়াও ফেলিক্স।