১৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাথরঘাটায় সৎ মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যা ॥ মা আশঙ্কাজনক

পাথরঘাটায় সৎ মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যা ॥  মা আশঙ্কাজনক

অনলাইন ডেস্ক ॥ বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলায় সৎ মেয়ে ও স্ত্রীর ঘুমের ঘোরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মেয়ে সখিনা আক্তার (১০) ঘটনাস্থলে পুড়ে মারা যায় এবং স্ত্রী শাজেনূর বেগমের (৩০) অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বুধবার দিনগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার সদর পাথরঘাটা ইউনিয়নের রুহিতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর অভিযুক্ত সৎ বাবা বেলাল হোসেন (৩৫) পলাতক রয়েছেন।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে দগ্ধ ওই নারীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

দগ্ধ শাজেনূরের চাচাতো ভাই ইব্রাহিম জানান, বেলাল হোসেনের বাড়ি বরগুনার তালতলী উপজেলার ছকিনা এলাকায়। প্রায় দেড় বছর আগে শাজেনূরকে বিয়ে করেন তিনি। বিয়ের পর থেকেই তাদের দাম্পত্য জীবনে কলহ লেগেই রয়েছে। এ নিয়ে স্থানীয় পর্যায় একাধিকবার সালিশি বৈঠকও হয়েছে। এর মধ্যে প্রায়ই মা ও সৎ মেয়েকে আগুনে পুড়ে মারার হুমকি দিয়েছেন বেলাল।

দগ্ধের ফুফাতো বোন বলেন, দগ্ধ অবস্থায় শাজেনূর জিনিয়েছেন রাতে তার ঘরে হঠাৎ করে আগুন জ্বলে উঠে। এসময় মা ও মেয়ে ঘর থেকে বের হতে চাইলে তার দ্বিতীয় স্বামী (তালাকপ্রাপ্ত) বেলাল হোসেন রাম দা দিয়ে ধাওয়া দিলে তারা ঘর থেকে বের হতে পারেনি। এতে ঘটনাস্থলেই আগুনে পুড়ে মেয়ে মারা যায় মেয়ে সখিনা। আর মা শাজেনূরকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. জিয়া উদ্দিন আগুনে দগ্ধ হয়ে শিশু মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় শাজেনূর নামে এক নারীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার শরীরের ৮০ শতাংশ পুড়ে গেছে বলেও জানান তিনি।

পাথরঘাটা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বলেন, ময়না-তদন্তের জন্য মরদেহ বরগুনা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পলাতক বেলাল হোসেনকে আটকে চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।