২৩ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফরমালিন রোধে কার্যকর পদক্ষেপ চেয়েছে হাইকোর্ট

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ফরমালিন পরীক্ষার বিষয়ে বিএসটিআইয়ের দেয়া প্রতিবেদনে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে হাইকোর্ট। এরপর দেশীয় মৌসুমি ফল আমে ফরমালিনের ব্যবহার বন্ধে কী কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে এবং কিভাবে বাজার মনিটরিং করা হচ্ছে এ বিষয়ে পুলিশ ও র‌্যাবকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। শুনানির একপর্যায়ে হাইকোর্ট মন্তব্য করে, খাদ্যপণ্যে টেক্সটাইলের রং ও এ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার হচ্ছে, মানুষের বাঁচার কোন উপায় নেই। হাইকোর্টের আদেশ অনুসারে কাজ হচ্ছে না। আমের বাজারে ফরমালিন পরীক্ষার বিষয়ে বিএসটিআইয়ের প্রতিবেদনে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে হাইকোর্ট পুলিশ ও র‌্যাবকে আবারও প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য ২৩ জুন দিন ধার্য করা হয়েছে। বিচারপতি এফ এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ নির্দেশ দেয়। আদালতে রিটকারী পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এ বি এম আবদুল্লাহ আল বাশার।

আদালতের নির্দেশের পর আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, আম ও ফলে কেমিক্যাল রোধে সারাদেশের ফলের বাজার ও আড়তে নজরদারি করতে কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। এক সপ্তাহের মধ্যে দেশের সব ফলের আড়ত ও বাজারে থাকা আম পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সংশ্লিষ্টদের প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছিল। তিনি বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার মামলাটির শুনানি হয়। শুনানিতে আদালত র‌্যাব ও পুলিশ কর্তৃপক্ষের প্রতি এই নির্দেশনা দেয়। এর আগে গত ২০ মে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের ফলের বাজার ও আড়তগুলোতে যেন আমে কেমিক্যাল ব্যবহার করতে না পারে তা তদারকির জন্য মনিটরিং টিম গঠনের নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। পুলিশ মহাপরিদর্শক, র‌্যাবের মহাপরিচালক, বিএসটিআইয়ের চেয়ারম্যান ও বিএসটিআইয়ের পরিচালককে এ মনিটরিং টিম গঠন করতে বলা হয়।