১৭ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কাল অস্ট্রেলিয়াকেও হারাতে প্রস্তুত বাংলাদেশ

কাল অস্ট্রেলিয়াকেও হারাতে প্রস্তুত বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপে পাঁচটি ম্যাচ খেলে ফেলেছে বাংলাদেশ। হাতে আছে আর চারটি ম্যাচ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পরের ম্যাচটি খেলবে বাংলাদেশ। নটিংহ্যামের ট্রেন্টব্রিজে বৃহস্পতিবার দুইদলের মধ্যকার ম্যাচটি হবে। এই ম্যাচেও জিততে চায় বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে চায়।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে রেকর্ড গড়ে জিতে বাংলাদেশ। ম্যাচটি জেতার পর সেমিফাইনালে খেলার আশা ভালভাবেই জাগ্রত হয়েছে। সেই সম্ভাবনা আরও জোরালো করতে হলে অসিদের হারালে অনেক ভাল হয়। বাংলাদেশ সেই কাজটিই করতে চায়। বিশ্বকাপে সেরা নৈপুণ্য দেখানো বিশ্বসেরা ওয়ানডে অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান তাই ভাবছেন।

তিনি যা বলেছেন, তাতে সোমবার পর্যন্ত ৫ ম্যাচে ৪ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার এক নম্বরে থাকা অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর চেষ্টার ইঙ্গিতই দিয়েছেন। বলেছেন, ‘আমরা অস্ট্রেলীয় দলের বোলারদের গতি নিয়ে খুব একটা চিন্তিত নই। কারণ আমরা ইংল্যান্ডের ফাস্ট বোলারদের খেলেছি, খেলেছি ওয়েস্ট ইন্ডিজের ফাস্ট বোলারদের। দুই দলেরই ১৪০ কিলোমিটারের চেয়েও বেশি গতিতে বোলিং করা ফাস্ট বোলার আছে। এ বোলারদের মুখোমুখি হওয়ার পর আমরা যদি মৌলিক বিষয়গুলো ঠিক রাখতে পারি তাহলেই হবে। আমি মনে করি আমরা যথেষ্ট ভাল দল। এ ধরনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার সক্ষমতা আমাদের আছে।’

শুধু সাকিবই নন, বিশ্বকাপে প্রথমবার খেলতে নেমেই টার্গেট অতিক্রম করে ফেলায় ৬ রানের জন্য সেঞ্চুরি করতে না পারা লিটন কুমার দাসও একই সুরে কথা বলেছেন। জানিয়েছেন, ‘এশিয়ান দলের বিপক্ষে সবাই শর্ট বল করার চেষ্টা করে। ১০ শর্ট বলের আমরা ৫টায় সফল হই, ৫টায় হই না। এশিয়ার বাইরের দলগুলো স্বাভাবিকভাবে এটা আমাদের বিপক্ষে চেষ্টা করবে। ওদের গতিময় বোলার আছে। আজ (ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে) যেভাবে সামলে খেলেছি, পরের ম্যাচেও একইভাবে খেলতে হবে।’ অস্ট্রেলিয়া বোলাররাই আসল পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন। তা ভাল করেই জানা। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরাও যে কম নন, তাওতো এখন সবার জানা। সাকিব ও লিটন তাই সাহস দেখাচ্ছেন। অসি পেসারদের বিপক্ষে দাপটের সঙ্গে খেলা মানে ম্যাচে জয়ও মিলতে পারে।

অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ অবশ্য ৩৫০ ছাড়ানো স্কোর গড়ার কথাই বলেছেন। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে নামার আগে এইদিকেই বেশি জোর দিয়েছেন স্মিথ। বলেছেন, ‘যখন আপনি ভাল একটা শুরু পাবেন এবং আপনার হাতে উইকেট থাকবে তখন আপনার চ্যালেঞ্জটা নেয়ার চেষ্টা করে যেতে হবে।’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘আমি মনে করি, এসব ক্ষেত্রে আপনি ৩৫০’র বেশি রান করতে পারবেন। আপনি যদি রান রেটটা ধরে রাখেন এবং ইতিবাচক মনোভাবে কিছুটা আক্রমণাত্মক খেলেন, হাতে যদি উইকেট থাকে, তাহলেই আপনি আপনার ৩৫০ ছাড়ানো স্কোর পেয়ে যাবেন।’

স্মিথ তাহলে ৩৫০ রান ছাড়াতে পারলে জেতার সম্ভাবনা দেখছেন। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরা যে সেটিও করতে সক্ষম তা হয়তো আমলে নিচ্ছেন না। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩২১ রান করল। বাংলাদেশের সামনে জিততে টার্গেট দাঁড় হলো ৩২২। জিততে হলে নিজেদের সর্বোচ্চ রানের টার্গেট অতিক্রম করে জিততে হবে। সাকিব (১২৪*) ও লিটন (৯৪*) মিলে বাংলাদেশকে জিতিয়ে মাঠও ছাড়লেন। তাও আবার ৫১ বল বাকি থাকতে ৭ উইকেটে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। ৩৫০ রান হলেওতো জয় আসতো সহজেই! তাইতো অস্ট্রেলিয়াকে নিয়েও বেশি চিন্তিত নয় ৫ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট পাওয়া বাংলাদেশ। তাদেরও হারাতে প্রস্তুত বাংলাদেশ।