১৬ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দলবদলের শুরুতেই চমক

  • কোহিনুর আক্তার

গ্রীষ্মকালীন দলবদলের শুরুতেই চমক দেখিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। চুক্তিটা হয়েও হচ্ছিল না। বেলজিয়াম ফরোয়ার্ড এডেন হ্যাজার্ড চেলসি ছাড়ছেন নিশ্চিত ছিল। রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিচ্ছেন সেটাও প্রায় জানা ছিল। শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণাই আসছিল না। তবে শেষ পর্যন্ত রিয়াল মাদ্রিদের পক্ষ থেকে হ্যাজার্ডের সঙ্গে চুক্তির ব্যাপারে নিশ্চিত করা হয়েছে। চেলসি তারকাকে দলে ভেড়াতে রিয়ালের খরচ হয়েছে একশ’ মিলিয়ন ইউরো। এর আগে খবর বেরোয়, বেলজিয়াম তারকাকে পেতে কমপক্ষে একশ’ মিলিয়ন ইউরো খরচ করতে হবে রিয়ালের। সর্বোচ্চ ১৪০ মিলিয়ন ইউরো হতে পারে। সেই হিসাব করলে কমেই বিশ্বের অন্যতম সেরা এই তারকাকে পেয়েছে লস ব্ল্যাঙ্কোসরা।

রিয়াল মাদ্রিদ হ্যাজার্ডের সঙ্গে পাঁচ বছরের চুক্তি করেছে। সে হিসেবে ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত রিয়ালে থাকবেন তিনি। গত সপ্তাহে হ্যাজাডকে রিয়াল সমর্থকদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়। গত মৌসুমে হ্যাজার্ড চেলসির হয়ে ইউরোপা লিগ জিতেছেন। আর্সেনালের বিপক্ষে ফাইনালে তিনি জোড়া গোল করেন। এক বিবৃতিতে চেলসি ডিরেক্টর মারিনা গ্রানোভস্কিয়া নতুন চ্যালেঞ্জের জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন হ্যাজার্ডকে। তিনি বলেন, ‘তাকে বিদায় বলা আমাদের জন্য দুঃখের। ক্লাব তাকে ধরে রাখতে চেয়েছিল। তবে তার সিদ্ধান্তকেও আমাদের সম্মান দেওয়া উচিত। সে চেলসিতে যে স্মৃতি রেখে গেছে তা মলিন হবে না।’

এদিকে, বর্তমান বিশ্ব ফুটবলের সেরা প্রতিভাবান ফুটবলার কিলিয়ান এমবাপে। মোনাকোর পর এখন দ্যুতি ছড়াচ্ছেন ফ্রেঞ্চ লীগ ওয়ানের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে। তবে এমবাপের ভবিষ্যত নিয়ে যখন জল্পনা কল্পনা শুরু হয়েছে, তখনই সেটিকে আরও উস্কে দিলেন তিনি নিজেই। ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী এই তরুণ তারকা বলছেন, আমি দায়িত্ব নিতে চাই, সেটি পিএসজিতে হোক, কিংবা অন্য যে কোন ক্লাবেই! গত মাসেই লীগ ওয়ানের মৌসুম সেরা খেলোয়াড় হিসেবে ঘোষণা করা হয় কিলিয়ান এমবাপের নাম। এই সময়য়ই ক্লাব ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার সম্ভাবনাকে একেবারেই উড়িয়ে দেননি তিনি। নিজের অভিমত প্রকাশ করতে গিয়ে এমবাপে বলেন, ‘অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে আমি এ পুরস্কার পেয়েছি। আমার ক্যারিয়ারের একটি টার্নিং পয়েন্ট। যা আমাকে আরও অধিক দায়িত্ব নিয়ে খেলার জন্য অনপ্রাণীত করছে। সেটি পিএসজিতে হতে পারে, কিংবা অন্য কোথাও।’

মিক্স জোনে করা মন্তব্য থেকে পরবর্তীতেও সরে আসেননি এমবাপে। কয়েক মিনিট পর তিনি বলেন, ‘আমার কাছে ওই মুহূর্তের বক্তব্যটি সঠিক মনে হয়েছে। আমি যখন কোন কথা বলি, সেটি ভেবে চিন্তেই বলি।’ এসময়ও তিনি দলে আরও বেশি দায়িত্ব গ্রহণের বিষয়ে নিজের অবস্থান তুলে ধরেন। পিএসজির ফরাসি স্ট্রাইকার বলেন, ‘পিএসজিতে হলে সেটি তো ভালই। অন্যত্র হলেও সমস্যা নেই। অন্য কোথাও হলে সেটি হবে নতুন চ্যালেঞ্জ।’ ২০১৭ সালে মোনাকোর শিরোপা জয়ী দলে থাকা অবস্থা থেকেই রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন এমবাপে। কিন্তু লীগ ওয়ানের রেকর্ড ভেঙ্গে ১৮০ মিলিয়ন ইউরোতে পিএসজিতে যোগ দেন তিনি। তবে চলতি বছরের শুরুতে রিয়াল মাদ্রিদের ডাগ আউটে ফের ফিরে গেছেন জিনেদিন জিদান। তার প্রত্যাবর্তনের পর পরই এমবাপের সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে যোগদানের গুজব জোড়ালো হয়।

দলবদলে বিশ্ব রেকর্ড গড়ে ২০১৭ সালে বার্সিলোনা থেকে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে যোগ দিয়েছিলেন নেইমার। ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে! প্যারিস জায়ান্টে পিএসজিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার। আবার লা লিগায় ফিরতে যাচ্ছেন তিনি। তারই সাবেক ক্লাব বার্সিলোনা কিংবা তাদেরই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়া নিয়ে শুরু হয় ব্যাপক গুঞ্জন। যদিওবা গত তিন বছর এই গুঞ্জন থাকার পরও পিএসজি ছাড়েননি ২৭ বছরের এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্র্ড। তবে এবার নেইমারকে বিক্রি করে দিতে যাচ্ছে প্যারিস জায়ান্টরা। এল ইকুইপ তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে তা।

পিএসজিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই ইনজুরির সমস্যায় জর্জরিত নেইমার। বর্তমানেও চোটের কবলে সাবেক বার্সিলোনা ও সান্তোস ফরোয়ার্ড। কাতারের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে চোট পেয়েছিলেন তিনি। যে কারণে লাতিন আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্বের টুর্নামেন্ট কোপা আমেরিকা থেকেও ছিটকে পড়েন নেইমার। এর মধ্যেই যৌন-কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়ে নেইমারের নাম। যে কারণেই নেইমারের প্রতি আগেই সেই আকর্ষণ এখন আর নেই পিএসজির। ক্লাবটির প্রেসিডেন্ট নাসের আল খেলাফিও যেন হতাশ। সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে তিনি জানিয়েছেন, ক্লাবের কোন খেলোয়াড়েরই ‘সেলিব্রেটি’ আচরণ সহ্য করা হবে না। তাহলে কী অপেক্ষা করছে নেইমারের ভাগ্যে? ফুটবলপ্রেমীদের অপেক্ষা এখন সেটাই দেখার।

এদিকে, ২০১৬ সালে জুভেন্টাস থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে পাড়ি জমিয়েছিলেন পল পগবা। ওল্ড ট্রাফোর্ড অধ্যায়ে অনেক বড়বড় ক্লাবের প্রস্তাব পেয়েছিলেন ফরাসী মিডফিল্ডার। তিনি নিজেও স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ কিংবা বার্সিলোনায় যাওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন। যদিও তার আশাটা পূরণ করেনি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তাকে ছাড়পত্র দেয়নি রেড ডেভিলরা। এবার বোধহয় পগবাকে ছেড়ে দিতে হবে ইংলিশ ক্লাবটিকে। ফরাসী সেনসেশন ওল্ড ট্রাফোর্ড ছাড়ার কথা বলে দিয়েছেন। তার মতে ম্যানইউ ছাড়ার এটাই উপযুক্ত সময়। ম্যানচেস্টার জায়ান্টদের ছেড়ে কোথায় যাবেন পগবা? যেখান থেকে এসেছিলেন সেখানেই ফিরে যেতে পারেন এই মিডফিল্ডার। বেশ কদিন ধরেই জুভেন্টাসের সঙ্গে যোগাযোগ চলছে পগবার। আবার রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গেও কথা হয়েছে তার। ম্যানইউ বাধা হয়ে না দাঁড়ালে এবার নতুন ঠিকানায় যাচ্ছেন পগবা। ২৬ বছর বয়সী পগবা বলেন, ‘আমি নতুন কোথাও নতুন একটা চ্যালেঞ্জের কথা ভাবছি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে গত তিন বছর আমার দুর্দান্ত কেটেছে। এর মধ্যে কিছু ভাল, কিছু মন্দ। যা অনেকেরই হতে পারে। এই মৌসুমটা আমার সেরা কেটেছে। আমার মনে হয় নতুন চ্যালেঞ্জের জন্য এটাই উপযুক্ত সময়।’