২৪ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অস্ট্রেলিয়ার ‘মাথাব্যথা’ সাকিব

জিএম মোস্তফা ॥ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সর্বকালের সেরাদের একজন। প্রতিনিয়তই নিজেকে দারুণভাবে মেলে ধরছেন বাংলাদেশের ‘প্রাণ’ খ্যাত সাকিব আল হাসান। চলমান বিশ্বকাপেও জ্বলছেন তিনি আপন মহিমায়।

বাংলাদেশের জার্সিতে প্রথম চার ম্যাচের সবটিতেই সাকিব আল হাসানের পারফর্মেন্স ছিল ঈর্ষণীয়! ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বল হাতেও জাত ছিনিয়েছেন তার। চার ম্যাচে সমান দুটি করে ফিফটি ও সেঞ্চুরির পাশাপাশি বল হাতে তুলে নিয়েছেন প্রতিপক্ষের পাঁচ উইকেট। ১২৮ গড়ে তার রান ৩৮৪। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় তাই স্বাভাবিকভাবেই সবার ওপরে সাকিব। তার ধারে কাছে থাকা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে রয়েছেন জো রুট। তাও আবার এক ম্যাচ বেশি খেলে। পাঁচ ম্যাচ থেকে ইংলিশ ব্যাটসম্যান রুটের দখলে ৩৬৭ রান। ৫ ম্যাচ থেকে ৩৪৩ রান করে তিনে অবস্থান এ্যারন ফিঞ্চের।

সাকিবের এমন পারফর্মেন্স মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ারও। হ্যাঁ, আজ বাংলাদেশের বিপক্ষে মুখোমুখি হওয়ার আগে সাকিবকে নিয়েই বেশি ভাবছে স্মিথ-ওয়ার্নাররা। সোমবার রাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের রেকর্ড জয়ে সাকিবেরই যে ভূমিকা ছিল গুরুত্বপূর্ণ। আজ ট্রেন্টব্রিজেও তাই বাংলাদেশের অন্যতম ভরসার নাম সাকিব। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচের আগে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে নিয়ে সতর্ক অজি শিবির। সাকিবকে নিয়ে এতটাই সতর্ক যে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের বাঁহাতি স্পিন সামলানোর প্রস্তুতি নেয়ার জন্য তাদের ক্যাম্পে ডেকে নিয়ে এসেছেন এ্যাস্টন এ্যাগারকে। যাতে বাঁহাতি স্পিন খেলে মানিয়ে নিতে পারেন ফিঞ্চ, ওয়ার্নার, স্মিথরা। এ্যাগার অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ স্কোয়াডে না থাকলেও ‘এ’ দলের সফরে বর্তমানে ইংল্যান্ডেই অবস্থান করছেন। সেই সুযোগটাই কাজে লাগিয়েছে তারা।

সাকিব প্রসঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার ম্যাচের আগেই সতর্ক করে দিয়েছেন তার শিষ্যদের। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সাকিব বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার এবং একজন বাঁহাতি স্পিনার। ভাল ক্রিকেট খেলেই এই অবস্থানে উঠে এসেছে সে। এটা আমাকে মোটেও বিস্মিত করে না। কেননা সে অসাধারণ মাপের একজন ক্রিকেটার। তার (সাকিব) বিপক্ষে আমাদেরও পরিকল্পনা রয়েছে। এ্যাগার আসায় আমাদের প্রস্তুতিতে সাহায্য হবে। একজন বাঁহাতি স্পিনারের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করায় তাকে ডেকে আনা হয়েছে।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের আগে সাকিব আল হাসানকে ‘বিগ ফিশ’ বলে মন্তব্য করেছেন অস্ট্রেলিয়ার উইকেটরক্ষক কাম ব্যাটসম্যান এ্যালেক্স ক্যারি। যে কারণে এই উইকেটটাই দ্রুত তুলে নেয়ার লক্ষ্য থাকবে তাদের। এ প্রসঙ্গে ক্যারি বলেন, ‘এই মুহূর্তে বাংলাদেশ সত্যিই খুব ভাল ক্রিকেট খেলছে। এখানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন সাকিব আল হাসান। তাই সুস্পষ্টভাবেই আমরা সাকিবের ওপর আলাদা করেই দৃষ্টি রাখব। এছাড়া টপঅর্ডারের অন্যান্য ব্যাটসম্যান এমনকি বোলারদের ওপরও চোখ থাকবে আমাদের।’

বিশ্বকাপের প্রথম পাঁচ ম্যাচ থেকে সমান পাঁচ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের পঞ্চম স্থানে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে পাঁচ ম্যাচ থেকে ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুই নম্বরে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম পাঁচ ম্যাচের চারটিতেই জয় তুলে নিয়েছে এ্যারন ফিঞ্চের দল। বিপরীতে হেরেছে মাত্র একটিতে। বেশ কয়েকজন ভাল ব্যাটসম্যানের পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ার স্কোয়াডে রয়েছেন ভাল কয়েকজন ফার্স্ট বোলারও।

সাকিব অবশ্য এসব নিয়ে খুব একটা চিন্তিত না। এর পেছনে যুক্তিও রয়েছে তার। কেননা দক্ষিণ আফ্রিকা আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে যে পেসারদের মোকাবেলা করেই দুর্দান্ত দুই জয়ের স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। এ প্রসঙ্গে সাকিব আল হাসান বলেন, ‘এই বিশ্বকাপে গত চারটি ম্যাচে সব প্রতিপক্ষ দলেরই অন্তত দুইজন বোলার ছিলেন যারা কমপক্ষে ১৪০ কিলোমিটার গতিতে বল করেন। তাদের আমরা ভালভাবেই মোকাবেলা করেছি। পেস মোকাবেলা করা এবং চ্যালেঞ্জের জবাব দেয়ার দক্ষতা আমাদের টিমের আছে বলেই আমি মনে করি।’

নির্বাচিত সংবাদ