১৭ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাউফলে পুলিশের কাছ থেকে পিস্তল ও গুলি ছিনতাই, আহত ১৬, গ্রেফতার ৮

বাউফলে পুলিশের কাছ থেকে পিস্তল ও গুলি ছিনতাই, আহত ১৬, গ্রেফতার ৮

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটুয়াখালী ॥ বাউফলের নাজিরপুর ইউনিয়নের বড় ডালিমা গ্রামে পুলিশের চোখে মরিচের গুড়া ছিটিয়ে পিস্তল ও ১০ রাউন্ড গুলি ছিনিয়ে নিয়েছে দুবৃত্তরা। সোমবার সাকাল ৮ টায় নাজিরপুর ইউনিয়নের বড় ডালিমা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় তিনজন পুলিশসহ কমপক্ষে ১৬ জন আহত হয়েছেন। গ্রেফতার করা হয়েছে ৮ জনকে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার দিন সকাল ৮ টায় জমিজমা বিরোধকে কেন্দ্র করে হাকিম হাওলাদার ও কামাল হোসেন গংদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ খবর পেয়ে বাউফল থানার এএসআই মাইনুদ্দি দুই পুলিশ সদস্য নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। সংঘর্ষ চলাকালে এক পর্যায়ে খাদিজা বেগম নামের এক মহিলা পুলিশের চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেয়। এ সময় ফিরোজ হাওলাদার নামের এক দুর্বৃত্ত এএসআই মাইনুদ্দিনের কাছ থেকে সরকারী পিস্তল ও ১০ রাউন্ড গুলি ছিনিয়ে নেয়। খবর পেয়ে বাউফল থানার ওসি খন্দোকার মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অস্ত্র উদ্ধারের অভিযান চালায় এবং দুপুর ১ টার সময় স্থানীয় দুই জন আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি চেয়াম্যান ইব্রাহিম ফারুক এবং এসএম ফয়সাল আহমেদ মনির হোসেন মোল্লার সহযোগীতায় দুবৃত্ত ফিরোজ হাওলাদারের বাড়ীর একটি নারিকেল গাছের মাথা থেকে পিস্তল ও গুলি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পুলিশ ৮ জনকে গ্রেফতার করেছে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে এএসআই মাইনুল, পুলিশ সদস্য লক্ষণ সেন ও ইমরানকে বাউফল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ খবর পেয়ে পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. মঈনুল হাসান বাউফলে এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছেন। এলাকায় থম থমে পরিস্তিতি বিরাজ করছে। পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে।

এই মাত্রা পাওয়া