২৪ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গত ১১ বছরে ৩৩৯টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে : শিক্ষামন্ত্রী

গত ১১ বছরে ৩৩৯টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে : শিক্ষামন্ত্রী

সংসদ রিপোর্টার ॥ শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, ২০০৯ থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ১১ বছরে ৩৩৯টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারি দলের বেগম গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকারের প্রশ্নের লিখিত জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী জানান, সরকারি স্কুল-কলেজবিহীন উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি ও নির্দেশনার আলোকে একটি করে স্কুল এবং একটি করে কলেজ সরকারিকরণের আওতায় ইতোমধ্যে ২৯৯টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে। এছাড়া সরকারের ২০০৯ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত আরো ৪০টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে।

গণফোরামের মোকাব্বির খানের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী জানান, ১শ’টি উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ (টিএসসি) স্থাপন শীর্ষক প্রকল্পের মেয়াদ আরো ৩ বছর বাড়ানো হয়েছে। এ প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ে ৩২৯টি উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপন করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রী সরকারি দলের নিজাম উদ্দিন জলিল জনের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থার আধুনিকায়নসহ দেশকে জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতির দেশে পরিনত করতে প্রতি জেলায় একটি করে পাবলিক অথবা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ উদ্যোগের অংশ হিসাবে দেশের প্রায় সব জেলায় ইতোমধ্যে একটি করে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে।

নীতিমালা অনুযায়ী ফ্লাট বরাদ্দ ॥ গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি সংসদকে জানিয়েছেন, যেসব সংসদ সদস্যের ঢাকায় প্লট বা ফ্ল্যাট নেই তারা আবেদন করলে উত্তরা এ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পে নীতিমালা অনুযায়ী তাদের নামে ফ্ল্যাট বরাদ্দ করা হবে।

সংরক্ষিত মহিলা আসনের বেগম হাবিবা রহমান খানের প্রশ্নের লিখিত উত্তরে মন্ত্রী আরও জানান, রাজউকের আওতাধীন উত্তরা ১৮ নম্বর সেক্টরে উত্তরা এ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পের এ ব্লকে ১৬৫৪ বর্গফুট আয়তনের কিছু সংখ্যক ফ্ল্যাট বর্তমানে অবরাদ্দকৃত অবস্থায় রয়েছে। মাননীয় সংসদ সদস্য ক্যাটাগরিতে সকল সঠিক আবেদনকারীগণের অনুকূলে ফ্ল্যাট বরাদ্দ করা হবে।

মোঃ আফজাল হোসেনের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সংসদকে জানান, বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্লট উন্নয়ন ও ফ্ল্যাট নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। বিভিন্ন উৎসের অর্থায়নে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের আওতায় মোট ৪১টি প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ চলমান রয়েছে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সংসদকে জানান, ঢাকায় পরিত্যক্ত সরকারি বাড়ি রয়েছে। এসব বাড়ির মধ্যে ‘ক’ তালিকার বিক্রয়যোগ্য পরিত্যক্ত বাড়িগুলো শহীদ পরিবার ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের অনুকূলে বরাদ্দ ও বিক্রয় কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ