১৭ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হামলা জন্য সাম্প্রদায়িক শক্তি তলে তলে প্রস্তুতি নিচ্ছে : সেতুমন্ত্রী

হামলা  জন্য সাম্প্রদায়িক শক্তি তলে তলে প্রস্তুতি নিচ্ছে  : সেতুমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ সাম্প্রদায়িক শক্তি তলে তলে বড় ধরনের হামলা পরিচালনার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুর কাদের বলেছেন, সাম্প্রদায়িক শক্তি তলে তলে প্রস্তুতি নিচ্ছে বড় ধরনের কোন হামলা পরিচালনার জন্য। কাজেই আমাদের আজকে সতর্ক থাকতে হবে। আমাদের দেশের জনগনকে নিয়ে, অসাম্প্রদায়িক শক্তিকে নিয়ে আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে দলের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলের পক্ষ থেকে আয়োজিত সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা উদ্বোধনপূর্ব বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যেই বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন হয়েছে, যেই চেতনার ভিত্তিতে দেশ স্বাধীন হয়েছে, সেই চেতনাবিরোধী শক্তি এখনও খুবই দুর্বল এ কথা মনে করার কোন কারণ নেই। তিনি বলেন, এখনও সেই বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক মানবতাবিরোধী শক্তি হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তি জঙ্গীবাদের ভয়ঙ্কর মুর্তিতে মাঝে মাঝে আবির্ভূুত হয়। হলি আর্টিজান, শোলাকিয়ার সেই ট্র্যাজেডির পর আমরা যদি মনে করি সেই সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তির পতন হয়েছে তাহলে আমরা শ্রীলংকার মতই ভুল করবো। আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। এখনও ষড়যন্ত্র আছে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনা সরকার আজকে নির্বাচনে বিপুলভাবে বিজয়ী হয়ে চতুর্থ বারের মত ক্ষমতায় এসেছে, এটা আজকে পাকিস্তানপন্থী অশুভ শক্তি তারা মেনে নিতে পারছে না। এই অশুভ শক্তি আমাদের এই সরকারে বিরুদ্ধে চক্রান্ত করছে। অসাম্প্রদায়িক চেতনা থেকে আওয়ামী লীগ একচুলও সরেনি দাবি করে তিনি বলেন, সাংস্কৃতিক অঙ্গনে আমাদের নিয়ে একটা বিভ্রান্তি আছে যে, আওয়ামী লীগ নির্বাচনী এলায়েন্সের মধ্যে দিয়ে স্বাধীনতার চেতনা মুল্যবোধের পরিপন্থী কাজ করছে। আমি আপনাদের আশ্বস্ত করতে চাই, আওয়ামী লীগ কৌশলগত কারণে কিছুটা পরিবর্তন হয়েছে কিন্তু আদর্শিকভাবে বাংলাদেশের জšে§র চেতনা থেকে, আমাদের শিকড় থেকে আমরা এক চুলও সরে যায়নি। আমরা আমাদের শিকড়ের সঙ্গে আছি, থাকবো।

সাংস্কৃতিক অঙ্গনের শিল্পীদের পাশে সবসময়ই শেখ হাসিনা আছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বাংলাদেশে সংস্কৃতির সবচেয়ে বড় পৃষ্ঠপোষক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সাংস্কৃতিক অঙ্গনে আমাদের সংস্কৃতিবান শিল্পী-সাহিত্যিকদের দুঃখের দিনে পাশে দাঁড়ানো শেখ হাসিনা মত কেউ ছিলেন না। সংস্কৃতির সঙ্গে যারা জড়িত আপনারা কোন অবস্থাতেই হতাশ হবেন না। আপনাদের বিপদে, আপনাদের সংকটে তিনি আপনাদের পাশে আছেন।

আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, সদস্য সচিব অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় সদস্য এ্যাডভোকেট রিয়াজুল কবির কাওসার, মহানগর দক্ষিন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমূখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে দেশ বরেণ্য শিল্পীরা গান ও কবিতা আবৃত্তি করেন। বিশিষ্ট শিল্পী কিরণ চন্দ্র রায়, ফাহমিদা নবী, আঁখি আলমগীর, চিশতী বাউল, বাপ্পা মজুমদারসহ অন্যরা সঙ্গীত পরিবেশন করেন।