২২ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সঠিক দায়িত্ব পালন করলে ভূমি সেবায় সমস্যা থাকবে না ॥ ভূমিমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী সরকারী কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বলেন, নিজ দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করুন। তাহলে কোথাও কোন সমস্যা থাকবে না। তিনি বলেন, আমরা সবাই নিজ দায়িত্ব সঠিকভাবে ও স্বচ্ছতার সঙ্গে পালন করলে ভূমিসেবা প্রদানে আর সমস্যা থাকবে না। আপনাদের মাঠ পর্যায়ে লব্ধ অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর মাধ্যমে মানুষকে সেবা প্রদান ও দেশের উন্নয়নে অবদান রাখলে আজকের এবং আগামী প্রজন্ম ভাল থাকবে। কোন কাজ করার আগে আমাদের সবার সাধারণ বুদ্ধি প্রয়োগ করতে হবে। কোন সমস্যা থাকলে সহকর্মীদের সঙ্গে পরামর্শ করতে হবে। মানুষকে সেবা প্রদান করতে হবে। ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক আয়োজিত ‘সরকারী স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সম্পত্তিতে দেওয়ানি মামলার রায়ের ভিত্তিতে রেকর্ড সংশোধনসহ সরকারী সম্পত্তি সুষ্ঠুভাবে রক্ষণাবেক্ষণ’ শীর্ষক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী সরকারী কর্মকর্তাদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন।

সরকারী সম্পত্তি ভুলভাবে রেকর্ড হলে তা রক্ষা করতে হবে, অন্যদিকে ব্যক্তি-জমি খাস হিসেবে রেকর্ড হয়ে গেলে মানুষ যেন ভোগান্তিতে না পড়ে তাতেও লক্ষ্য রাখতে হবে। আমরা এমন একটি ‘সিস্টেম’ দাঁড় করাতে চেষ্টা করছি যেন এ ধরনের ভুলভ্রান্তির জন্য কারও সর্বোচ্চ আদালতে যেতে না হয়। কারও পৈত্রিক সম্পত্তি সিএস ও আরএস রেকর্ডে থাকার পরেও যদি হাল জরিপে ভুলভাবে সরকারী তালিকাভুক্ত হয় তাহলে তা স্থানীয় পর্যায়ে সমাধান করার চেষ্টা করতে হবে যেন শুরুতেই আদালতে যেতে না হয়।

মন্ত্রী বলেন, স্থানীয়ভাবে যেন রেকর্ড মামলা নিষ্পত্তি করা যায় সে জন্য জেলা প্রশাসক, জিপি (সরকারী কৌঁসুলি), অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও বিভাগীয় কমিশনারের প্রতিনিধির সমন্বয়ে কমিটি গঠন করতে হবে। উক্ত কমিটি প্রতিকার প্রার্থীর বক্তব্য শুনে অভিযোগ নিষ্পত্তি করবে। বর্ণিত কমিটির আপীল কর্তৃপক্ষ হবেন সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় কমিশনার।

ভুলের কারণে অন্যের নামে তালিকাভুক্ত হওয়া সম্পত্তি বিদ্যমান আইনের আওতায় মূল মালিক কিংবা উত্তরাধিকারীকে ফিরিয়ে দেয়ার মতো প্রদান করেন কর্মশালার সভাপতি ভূমি সচিব মোঃ মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (আইন) আনিস মাহমুদ। মন্ত্রণালয়ের পরিবর্তে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে যৌক্তিকতাসহ নামজারির কেস রেকর্ড প্রেরণ, সরকারী জমির ক্ষেত্রে তামাদি শব্দটি প্রযোজ্য না করাসহ নয়টি সুপারিশ প্রদান করেন আনিস মাহমুদ।

কর্মশালায় নির্ধারিত আলোচকবৃন্দ ছিলেন ভূমি আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ আবদুল হান্নান, ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান উম্মুল হাছনা, ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদফতরের মহাপরিচালক মোঃ তসলীমুল ইসলাম।