১৬ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পড়ার বিষয় যখন ফার্মেসি

  • মাঈন উদ্দিন

বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ৩৫০টি ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এসর প্রতিষ্ঠানের উৎপাদিত ওষুধ দেশের চাহিদা মিটিয়ে প্রায় ৭০টি দেশে ওষুধ রফতানি হচ্ছে। আর এসব ওষুধ উৎপাদনে, মাননিয়ন্ত্রণে ও বিপণনে ফার্মাসিস্টদের ভূমিকা অপরিসীম। দেশের মেধাবী শিক্ষার্থীরা সময়োপযোগী শিক্ষার মাধ্যমে ফার্মাসিস্ট হিসেবে তৈরি হয়ে এ শিল্পকে দেশে ও দেশের বাইরে সুনাম অর্জন করতে সহায়তা করছে। ঢাকা ইন্টারন্যশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ) ফার্মেসি বিভাগ তেমনি দক্ষ ও উপযুক্ত ফার্মাসিস্ট তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছে। এর মূলে যিনি কাজ করে যাচ্ছেন তিনি হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের প্রাক্তন চেয়ারম্যান খ্যাতনামা অধ্যাপক ফরিদা বেগম। তিনি বর্তমানে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ফার্মেসি বিভাগের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। তার নেতৃত্বে দেশের বরেণ্য ও অভিজ্ঞতাসম্পন্ন প্রবীণ ও নবীন শিক্ষকরা এই বিভাগে শিক্ষাদানের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন। আর এ বিভাগে রয়েছে সময়োপযোগী ও অনুমোদিত পাঠ্যক্রম, আধুনিক ও পর্যাপ্ত যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ ল্যাবরেটরি এবং প্রয়োজনীয় এবং আধুনিক পুস্তক সংবলিত গ্রন্থাগার। তাই এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতোমধ্যে কৃতকার্য হওয়া ফার্মাসিস্টরা দেশের বিভিন্ন ওষুধ উৎপাদন প্রতিষ্ঠানে সাফল্যের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন। দেশের যে কয়েকটি বেসরকারী ইউনিভার্সিটিতে ফার্মেসি বিভাগ রয়েছে তার মধ্যে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ফার্মেসি বিভাগ অন্যতম।

অধ্যাপক ফরিদা বেগম জানান, ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ফার্মেসি বিভাগে রয়েছে সুসজ্জিত ও আধুনিক যন্ত্রপাতি সংবলিত ৫টি ল্যাবরেটরি। যেখানে আধুনিক, সৃজনশীল ও বিভিন্ন জটিল বিষয় নিয়ে ছাত্ররা সার্বক্ষণিক গবেষণা করে থাকে। এসব গবেষণার ফলাফল, তথ্য-উপাত্ত দেশী-বিদেশী বিভিন্ন সাময়িকীতে ইতোমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে যা বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের কাছে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। আর এ ইউনিভার্সিটির বিশেষত্ব হলো, স্বল্প খরচে মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের মানসম্পন্ন শিক্ষাদান করা হয়।

ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি এ্যাডুকেশন সেল (আইকিউএসি) : ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির নিজস্ব একটি ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি এ্যাডুকেশন সেল (আইকিউএসি) রয়েছে। এটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় বিশ্বদ্যিালয় মঞ্জুরি কমিশনের অধীনে ‘হায়্যার এ্যাডুকেশন কোয়ালিটি এনহেন্সমেন্ট প্রজেক্ট (হেকেপ)’ ও এ ইউনিভার্সিটি এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী ৭টি বিভাগের সেলফ এ্যাসেসমেন্ট কমিটি ১ জুলাই ২০১৫ থেকে যথারীতি কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

গবেষণা ও প্রকাশনা সেল : অত্র ইউনিভার্সিটিতে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ গবেষণা ও প্রকাশনা সেল রয়েছে। প্রতি বছর ওই সেল ডিআইইউ জার্নাল প্রকাশ করে থাকে। প্রত্যেক শিক্ষককে বছরে কমপক্ষে ২টি গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ করতে হয়।

ছাত্রছাত্রীদের আবাসিক : ছাত্রছাত্রীদের আবাসিক সমস্যা দূরীকরণের লক্ষ্যে অত্র ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসের সন্নিকটে রয়েছে ৭টি হোস্টেল রয়েছে। তারমধ্যে ছেলেদের জন্য রয়েছে ৫টি এবং মেয়েদের জন্য রয়েছে ২টি হোস্টেল। এছাড়াও নিকুঞ্জ জোয়ার সাহারায় ছেলেদের জন্য ১টি এবং গ্রীনরোডে মেয়েদের জন্য ১টি হোস্টেল রয়েছে।

সোস্যাল বিজনেস একাডেমিক সেল : এ ইউনিভার্সিটির সোস্যাল বিজনেস একাডেমিক সেল এদেশের সামাজিক ব্যবসা বিস্তারে বিশেষ ভূমিকা রাখছে। ইতোমধ্যে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সোস্যাল বিজনেস একাডেমিক সেলের সঙ্গে ইউনুস সেন্টারের এমওইউ স্বাক্ষরিত হয়েছে। প্রতিবছর এ বিশ্ববিদ্যালয় সোস্যাল বিজনেস একাডেমিয়ার আয়োজন করে। এ সেলের অধীনে ৩ মাস মেয়াদী শর্টসার্টিফিকেট কোর্স চালু রয়েছে।

ট্যোবাকো কন্ট্রোল এ্যান্ড রিসার্চ সেল : এ দেশের ধূমপানবিরোধী আন্দোলনে অত্র ইউনিভার্সিটি টিসিআরসি বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। গবেষণাপত্র প্রণয়ন ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে ধূমপানবিরোধী পথসভা, সেমিনার, মানববন্ধন ও ধূমপানবিরোধী আইন বাস্তবায়নে এ সেলের ভূমিকা অনন্য।

হিউম্যান রাইটস এ্যাডভোকেসি সেল : বাংলাদেশে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় এ সেল অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। সুবিধাবঞ্চিত, নিপীড়িত ও অসহায় মানুষের আইনী সহায়তা প্রদানে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির হিউম্যান রাইটস এ্যাডভোকেসি সেল বদ্ধপরিকর।

লাইব্রেরি : এ ইউনিভার্সিটিতে রয়েছে ৩টি সুসজ্জিত সমৃদ্ধ লাইব্রেরি। এখানে রয়েছে দেশী-বিদেশী পর্যাপ্ত বই ও জার্নাল। লাইব্রেরিতে শিক্ষার্থীরা নিরিবিলি পরিবেশে সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত পড়াশোনা করতে পারে। প্রয়োজনে লাইব্রেরি থেকে বই বাসায় নিয়ে পড়াশোনা করতে পারে। ই-লাইব্রেরির কার্যক্রম চালু রয়েছে।

ইন্টারনেট ও ল্যাবরেটরি : এ ইউনিভার্সিটি সম্পূর্ণ ওয়াইফাইয়ের আওতাভুক্ত। পুরো ক্যাম্পাস ওয়াইফাই হওয়ায় এবং ইন্টারনেট সুবিধা থাকায় শিক্ষার্থীরা গবেষণা কাজে বিশেষ সুবিধা ভোগ করছে। অত্র ইউনিভার্সিটিতে রয়েছে অত্যাধুনিক মানসম্পন্ন প্রায় ৩১টি ল্যাবরেটরি। যা বুয়েট-ডুয়েট এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খ্যাতিমান অধ্যাপকের সার্বিক তত্ত্বাবধানে পরিচালনা করা হয়।

ডিবেটিং ক্লাব : ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে রয়েছে ডিবেটিং ক্লাব। শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিতর্ক চর্চার জন্য নিয়মিত বিতর্ক কর্মশালা, উপস্থিত বক্তৃতা ও রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়ে থাকে। সম্প্রতি অত্র ইউনিভার্সিটির বিতার্কিক দল ইউসিবি পাবলিক পার্লামেন্ট এটিএন বাংলা আয়োজিত ডিবেট প্রতিযোগিতায় একবার চ্যাম্পিয়ন একবার রানার্স আপ হয়।

ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব : শিক্ষার্থীদের ইংরেজী ভাষার উপর দক্ষতা অর্জনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে সেন্টার ফর এক্সিলেন্স ও ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্টের সঙ্গে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এমওইউ স্বাক্ষর করেছে। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সকল শিক্ষার্থীদের ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ কোর্সকে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বেসিক ইংলিশ, ফাংশনাল ইংলিশ, প্রিলিমিনারি ইংলিশ ও এ্যাডভান্সড্ ইংলিশ কোর্সও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

বৃত্তি : বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ২০১০-এর আইন অনুযায়ী দরিদ্র, মেধাবী ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের বৃত্তি প্রদান করা হয়। এছাড়া পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নম্বরধারীদের বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুযোগ রয়েছে। বর্তমানে চার শতাধিক শিক্ষার্থী এ ইউনিভার্সিটিতে সম্পূর্ণ বিনা বেতনে অধ্যয়নরত।

স্থায়ী ক্যাম্পাস : ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস বাড্ডার সাতারকুলে স্থাপন করা হয়েছে। স্থায়ী ক্যাম্পাসে ওয়াইফাই, ক্যান্টিন, ব্যায়ামাগার ও আধুনিক অডিটোরিয়াম রয়েছে। স্থায়ী ক্যাম্পাসে ঢাকার বিভিন্ন জায়গা থেকে আসার জন্য বাস ও শাটল সার্ভিস রয়েছে। বছরের বিভিন্ন সময়ে স্থায়ী ক্যাম্পাসে ইনডোর ও আউটডোর গেমসের আয়োজন করা হয়। সবুজে ঘেরা ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ভরা এই স্থায়ী ক্যাম্পাসের পরিবেশ মনোমুগ্ধকর।

যোগাযোগ : বাড়ি-০৪, সড়ক-০১, ব্লক-এফ, বনানী, ঢাকা-১২১৩। মোবাইল : ০১৯৩৯৮৫১০৬১, ০১৯৩৯৮৫১০৬০।