১৬ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্যাম্পাস সংবাদ

বীর উত্তম শহীদ খাজা নিজামউদ্দিন ভূঁইয়া শিক্ষাবৃত্তি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ-এর ছাত্র মুক্তিযুদ্ধে শহীদ একমাত্র বেসামরিক বীর উত্তম খাজা নিজামউদ্দিন ভূঁইয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগে ১০,০০,০০০/ (দশ লাখ) টাকার শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। গত ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. হাবিবুল্লাহ কনফারেন্স হলে আয়োজিত আর্থিকভাবে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠানে এ বৃত্তি প্রদান করা হয়। বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ আখতারুজ্জামান। বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনসিসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোসলেহ উদ্দিন আহমেদ, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের পরিচালক সৈয়দ ওয়াসেক মোঃ আলী এবং ব্রাক ব্যাংকের সহকারী ব্যবস্থাপনা পরিচালক চৌধুরী আখতার আসিফ। অনুষ্ঠানে অন্যান্য ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বীর উত্তম শহীদ খাজা নিজামউদ্দিন ভূঁইয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর ভাই মাইলস্টোন কলেজের প্রশাসনিক ক্যাম্পাসের অধ্যক্ষ লে. কর্নেল এম কামালউদ্দিন ভূঁইয়া অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ আখতারুজ্জামানের হাতে বৃত্তির চেক তুলে দেন। এসময় বীর উত্তম শহীদ খাজা নিজামউদ্দিন ভূঁইয়ার আরও দুই সহোদর সুলতান মঈনউদ্দিন ভূঁইয়া এবং হাসান মহিউদ্দিন ভূঁইয়া উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, মুক্তিযুদ্ধে শহীদ একমাত্র বেসামরিক বীর উত্তম খাজা নিজাম উদ্দিন ভূঁইয়া ১৯৬৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা বিভাগে ভর্তি হন। ১৯৬৯ সালে স্নাতক সম্মান, ১৯৭০ সালে এমকম পাস করেন এবং ১৯৭১ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ কোর্সে আইবিএ’র শিক্ষার্থী ছিলেন। ১৯৭১ সালের ৪ সেপ্টেম্বর কানাইঘাটের সম্মুখ যুদ্ধে প্রায় ৮০০ সহযোদ্ধার জীবন বাঁচিয়ে দেশের জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করেন আমাদের অগ্নি সন্তান বীর উত্তম শহীদ খাজা নিজাম উদ্দিন ভূঁইয়া।

পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (প্রশাসন) ও এপিএ ফোকাল পয়েন্ট মোঃ নওয়াব আলী খান বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের হিসাবজ্ঞিান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগ হতে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেছেন। ডিগ্রীর শিরোনাম ছিল Role Of NGOs In Proverty Alleviation Of Bangladesh: A Case Study On BRAC তার গবেষণার ডিগ্রীর তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. এ কে এম মনিরুজ্জামান। এর আগে তিনি একই বিভাগ ও তত্ত্বাবধায়ক এর অধীন ২০০৮ সালে এমফিল ডিগ্রী অর্জন করেন। ড. মোঃ নওয়াব আলী খান ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার কুশবাড়িয়া গ্রামের খানপরিবারে মরহুম সুরত আলী খান ও হাজিরন নেসার কনিষ্ঠ পুত্র। তাঁর স্ত্রী সেলিনা আক্তার ইবির কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত। দুই সন্তানের জনক জনাব খানের কন্যা সাইকা নওরিন সেওতি বিডিএস এবং পুত্র রাফিদ খান নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। তিনি সকলের দোয়া প্রার্থী।

ক্যাম্পাস প্রতিবেদক