২০ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘ধর্ষণ ও হত্যার সঙ্গে জড়িতদের মৃত্যুদন্ড দিতে হবে’

 ‘ধর্ষণ ও হত্যার সঙ্গে জড়িতদের মৃত্যুদন্ড দিতে হবে’

সংসদ রিপোর্টার ॥ বিরোধী দলের নেতা ও জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ সম্প্রতি শিশু-নারী নির্যাতন বৃদ্ধির ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, স্কুল-মাদ্রাসা-কলেজ-বাসা কোথাও আজ শিশুরা নিরাপদ নয়। শিশু ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনা যেন মহামারি আকারে দেখা দিয়েছে। তাই এসব অপকর্মের সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত বিচারের মাধ্যমে সরাসরি মৃত্যুদন্ড দিতে হবে। বিলম্ব না করে এসব মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তির মাধ্যমে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে, যাতে এই অনাচার থেকে আমর দেশের শিশু-কিশোর-নারীদের সুরক্ষা দিতে পারি।

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবার একাদশ জাতীয় সংসদের তৃতীয় অধিবেশনের সমাপনি বক্তব্যে রাখতে গিয়ে তিনি এ দাবী জানান। গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির বিরোধীতা করে তিনি বলেন, আমরা উন্নয়ন চাই, কিন্তু গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি চাই না। এটা সারাদেশের জনগণের দাবী। আমরা যখন গ্যাসের দাম বাড়ালাম, তখন ভারতে দাম কমানো হলো।

বেগম রওশদ এরশাদ বলেন, শিক্ষাকে যারা পণ্য হিসেবে ব্যবহার করছে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। শিক্ষা কখনো পণ্য হতে পারে না। আর ঢালাও জিপিও-৫ আমাদের দরকার নেই, আমাদের মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। শিক্ষিত জাতি গড়ে তুলতে শিক্ষাখাতে বাজেট বরাদ্দের দাবী জানিয়ে তিনি বলেন, দেশের প্রখ্যাত চিকিৎসকরা রোগীদের বেশি সময় দেন না, বড় বড় হাসপাতালে তাঁরা চিকিৎসা দিতেই বেশি পছন্দ করেন। এ কারণে রোগীরা বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সারাবিশ্বে আমাদের উৎপাদিত ঔষুধ রফতানি হচ্ছে, অথচ দেশে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষুধ বিক্রি করা হচ্ছে। এটা সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক।

ডেঙ্গু ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। সন্ধ্যার পর মশার অত্যাচারে মানুষ অতিষ্ঠ। খাদ্যে ভেজাল এখনও বন্দ হয়নি। ঔষুধ ও খাদ্য মানুষের মৌলিক উপাদান ছাড়া বাঁচতে পারে না। উচ্চ আদালত থেকে ৫২ প্রকার ভেজাল পণ্যে বাজার থেকে তুলে নেওয়ার নির্দেশ দিলেও তা মানা হচ্ছে না। দুধেও ভেজাল। তবে নতুন প্রজন্মের ভবিষ্যত তবে কী হবে?

শিশু নির্যাতন মাত্রারিক্ত বেড়ে যাওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে রওশন এরশাদ বলেন, ছোট ছোট শিশু ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনা মহামারি আকারে ধারণ করেছে। স্কুলে-মাদ্রাসা কোন জায়গায় শিশুরা নিরাপদ নয়। তবে পড়াশোনা তারা কোথায় করবে? আইনকে কঠোরভাবে প্রয়োগ করতে হবে, সরাসরি জড়িতদের মৃত্যুদন্ড দিতে হবে। যাতে অনাচার থেকে বাচ্চাদের নিরাপদে রাখতে পারি, সুরক্ষা দিতে পারি। এসব চাঞ্চল্যকর মামলাগুলো বিলম্ব না করে দ্রুত বিচারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

উৎপাদিত ধানের দাম না পাওয়ায় কৃষকরা পথে বসেছে দাবী করে বিরোধী দলের নেতা বলেন, কষ্ট করে কৃষকরা ধান উৎপাদন করলেও মূল্য পাচ্ছে না। এরা ফসল না ফলায় তবে আমরা খাব কীভাবে? তাই এদের শতভাগ ভর্তুকি দিতে হবে। কৃষকদের বাঁচিয়ে রাখতে হবে। কৃষক না বাঁচলে দেশ বাঁচবে না। তিনি বলেন, দেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, সেভাবে বৈষম্য কমছে না। কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হচ্ছে না। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে বাজেটের অর্থবছর পরিবর্তনের দাবী জানিয়ে বলেন, এতে দেশে আরও উন্নয়ন হবে। বর্ষাকালে যতই উন্নয়ন করেন, সব ধুঁয়ে-মুছে যাবে।

সারাদেশে খেলার মাঠগুলো দখল হয়ে গেছে দাবী করে বিরোধী দলের নেতা বলেন, খেলার মাঠ না থাকলে নতুন প্রজন্মের সন্তানরা সুস্থ্যভাবে বেড়ে উঠবে না, তাদের মনন-মেধার বিকাশ ঘটবে না। অবাধে স্মার্টফোন ব্যবহার রোধের দাবী জানিয়ে বলেন, এর থেকে ভবিষ্যত প্রজন্মকে বাঁচাতে হবে। বাচ্চারা মাদকের মতো স্মার্টফোনে আসক্ত হয়ে পড়ছে। মাদকের ছোবল থেকে তরুণ প্রজন্মকে রক্ষা করতে হবে। তিনি হাসপাতাল অসুস্থ্য জাপা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের সুস্থ্যতার জন্য দেশবাসীর দোয়া কামনা করে তাঁর শাসনামলের উন্নয়নের ফিরিস্তি সংসদে তুলে ধরেন।

নির্বাচিত সংবাদ