২৩ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চট্টগ্রামে হোমিও চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ মহানগরীর পাঠানটুলী নজিরভা-ার মাজার সড়ক থেকে এক হোমিও চিকিৎসকের গলিত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে তার চেম্বার থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।

ডবলমুরিং থানা পুলিশ জানায়, মৃত এ চিকিৎসকের নাম মুনির হোসেন (৫২)। চেম্বার থেকে পচা দুর্গন্ধ পেয়ে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশের একটি টিম চিকিৎসকের মরদেহ উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। মরদেহটি চেম্বারের ভেতরে খাটের ওপর শোয়ানো অবস্থায় ছিল। মশারিও টাঙ্গানো ছিল। কয়েকদিন আগে ঘুমের মধ্যেই এ ব্যক্তির মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

নড়াইলে জামাতা

নিজস্ব সংবাদদাতা নড়াইল থেকে জানান, নড়াগাতি থানার জয়নগর গ্রামে শ্বশুরবাড়ি এলাকার একটি বাগান থেকে জামাতা আক্কেল মোল্যার (৩৫) রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আক্কেল গোপালগঞ্জ সদরের চরতালা গ্রামের এলেম মোল্যার ছেলে। পরকীয়ার কারণে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। এ ঘটনায় কথিত প্রেমিকা মারুফা বেগমকে (৩০) আটক করা হয়েছে। তবে মারুফার স্বামী মাহবুব শেখসহ পরিবারের লোকজন পলাতক রয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আক্কেল মোল্যার সঙ্গে জয়নগর গ্রামের মাহবুব শেখের স্ত্রী মারুফার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া চলছিল। মাহবুবদের বাড়ির কাছেই দেবদুন গ্রামে আক্কেল মোল্যার শ্বশুরবাড়ি। তার শ্বশুরের নাম সরোয়ার মোল্যা। আক্কেল শ্বশুরবাড়িতে যাওয়া-আসার সূত্র ধরেই মারুফার সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। এ বিষয়ে নড়াগাতি থানার ওসি আলমগীর কবির বলেন, পরকীয়ার জের ধরে আক্কেলকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

কেরানীগঞ্জে যুবক

নিজস্ব সংবাদদাতা কেরানীগঞ্জ থেকে জানান, বুড়িগঙ্গা থেকে বৃহস্পতিবার অজ্ঞাত এক যুবকের ভাসমান লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার এসআই আবু সিদ্দিক জানান, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে বেলা ১২টার দিকে বুড়িগঙ্গা নদীর তেলঘাটের পাশ থেকে অজ্ঞাত এক যুবকের ভাসমান লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বয়স আনুমানিক ২৮ বছর।

বরিশালে যুবক

স্টাফ রিপোর্টার বরিশাল থেকে জানান, নগরীর বাজার রোড এলাকার হক মিষ্টান্ন ভান্ডারের চতুর্থ তলার ভাড়াটিয়া বাসা থেকে বৃহস্পতিবার সকালে বিশ্বজিৎ দাস বিশু (২৭) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ। নিহত যুবক স্থানীয় বাবুল দাসের পুত্র। তিনি নগরীর নৌবন্দরের দ্বিতল লঞ্চঘাটের কোষাধ্যক্ষ (ক্যাশিয়ার) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার শ্বশুর মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক পরিমল চন্দ্র দাস। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পরিমল চন্দ্র দাস জানান, তার মেঝ মেয়ের জামাতা বিশ্বজিৎ দাস বিশু লঞ্চঘাটে ক্যাশিয়ার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আর তার মেয়ে বরিশাল ডায়াবেটিক হাসপাতালে চাকরি করেন। দুই সন্তান নিয়ে তারা বাজার রোড এলাকার ভাড়া বাসায় থাকত। বৃহস্পতিবার সকালে তার মেয়ে অফিসে যাওয়ার জন্য ঘুম থেকে জেগে বিশুকে খুঁজে পাচ্ছিল না। পরে পাশের রুমের জানালা দিয়ে দেখতে পায় বিশু ভেতরে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিশুর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে।

নির্বাচিত সংবাদ