১৭ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশাল জনসংখ্যাকে সম্পদে রূপ দেয়ার ওপর গুরুত্ব দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি বিদ্যমান বিশাল জনসংখ্যাকে জনসম্পদে রূপান্তর করে দেশের চলমান উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ১৯৯৪ সালে কায়রোতে অনুষ্ঠিত জনসংখ্যা ও উন্নয়ন সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে জনসংখ্যাকে উন্নয়নের মূল কেন্দ্র হিসেবে প্রথম আলোচিত হয়। বাংলাদেশ সরকারও জনসংখ্যার বিস্ফোরণ নিয়ন্ত্রণে বহুমুখী কর্মসূচী বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। পাশাপাশি বিদ্যমান জনসংখ্যাকে জনসম্পদে রূপান্তর করতেও সচেষ্ট রয়েছে। কারণ দেশের অগ্রগতি ও উন্নয়ন নিশ্চিত করাতে হলে জনসংখ্যাকে পরিকল্পিত রাখতে হবে। আর বিদ্যমান জনসংখ্যাকেও অবহেলা করে অকর্মণ্য রাখা যাবে না।

বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব শেখ ইউসুফ হারুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মোঃ আসাদুল ইসলাম স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাঃ আবুল কালাম আজাদ পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের মহাপরিচালক কাজী মোস্তফা সারোয়ার প্রমুখ।

জাহিদ মালেক বলেন, বর্তমান সরকার জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার স্বাভাবিক রাখা, পরিকল্পিত পরিবার গঠন, মা, শিশু স্বাস্থ্যসেবা ও প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা, স্বাভাবিক প্রসব সংক্রান্ত সকল সেবা, বয়ঃসন্ধিকালীন স্বাস্থ্যসেবা, আধুনিক পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি গ্রহীতার হার বৃদ্ধিকে যথেষ্ট অগ্রাধিকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। নিরাপদ মাতৃত্ব, কিশোর-কিশোরীর স্বাস্থ্য, নারী শিক্ষা ও নারী কর্মসংস্থানের জন্য নতুন নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের মাধ্যমে গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।