২০ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দরপতনে তলানিতে শেয়ারবাজার রাস্তায় বিনিয়োগকারী

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আরও তলানিতে দেশের শেয়াবাজার। বৃহস্পতিবারও পতনে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। এ নিয়ে টানা পাঁচ কার্যদিবস পতন হয়েছে শেয়ারবাজারে। এই টানা পতনের প্রতিবাদে দ্বিতীয় দিনের মতো বিনিয়োগকারীরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। সেখান থেকে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) শেয়ারবাজার সূলভ কর্মকান্ডের প্রত্যাশা করেছেন।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার উভয় শেয়ারবাজারের সব সূচক কমেছে। একই সঙ্গে কমেছে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেনও।

জানা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ২২২ পয়েন্টে। অপর দুই সূচকের মধ্যে শরীয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট ও ডিএসই-৩০ সূচক ৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১ হাজার ১৯৪ ও ১ হাজার ৮৫৭ পয়েন্টে।

ডিএসইতে ৩৫১ কোটি ৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগেরদিন লেনদেন হয়েছিল ৪০৮ কোটি টাকার। অর্থাৎ ডিএসইতে লেনদেন ৫৭ কোটি টাকা কম হয়েছে।

ডিএসইতে ৩৫৩টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১০৮টির বা ৩০ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। দর কমেছে ২১৯টির বা ৬২ শতাংশের এবং ২৬টি বা ৭ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

টাকার অংকে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের। এদিন কোম্পানিটির ১৮ কোটি ৮৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা ফেডারেল ইন্স্যুরেন্সের ১০ কোটি ৬৪ লাখ টাকার এবং ৮ কোটি ৮০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে উঠে আসে গ্রামীণফোন। ডিএসইর সার্বিক লেনদেনে উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে : রূপালী ইন্স্যুরেন্স, মুন্নু সিরামিক, ইউনাইটেড পাওয়ার, এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ড, রানার অটোমোবাইলস, সিনোবাংলা এবং ন্যাশনাল টিউবস।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ৫৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৯৭৬ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৬৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৬৬টির, কমেছে ১৭৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির দর। ১২ কোটি ২১ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

৪৬ ভাগ ব্যাংকের দর বেড়েছে ॥ ডিএসইতে বৃহস্পতিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ব্যাংক খাতে শেয়ার দর বেড়েছে ৪৬ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের। সারাদিনে সেখানে ৩০টি ব্যাংক লেনদেনে অংশ নিয়েছে। ব্যাংকগুলোর মধ্যে ১৪টির বা ৪৬ শতাংশের শেয়ার দর বেড়েছে এবং ৮টির বা ২৭ শতাংশের শেয়ার দর কমেছে এবং শেয়ার দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৮টির বা ২৭ শতাংশ ব্যাংকের। শেয়ার দর সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ০.৯০ টাকা বেড়েছে উত্তরা ব্যাংকের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ০.৮০ টাকা বেড়ছে ইস্টার্ন ব্যাংকের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ০.৬০ টাকা বেড়েছে ব্র্যাক ব্যাংকের।

এছাড়া ব্যাংক এশিয়া ও ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকেরর ০.৫০ টাকা করে; প্রাইম ও মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ০.৪০ টাকা করে; যমুনা ব্যাংকের ০.৩০ টাকা; ঢাকা ব্যাংকের ০.২০ টাকা এবং আল আরাফাহ্ ইসলামী, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী, স্যোসাল ইসলামী, সাউথইস্ট ও স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের শেয়ার দর ০.১০ টাকা করে বেড়েছে। শেয়ার দর সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ১.১০ টাকা কমেছে রূপালী ব্যাংকের। এছাড়া ন্যাশনাল ও আইসিবি ইসলামিক ব্যাংকের ০.৩০ টাকা করে; ট্রাস্ট ও ডাচ-বাংলা ব্যাংকের ০.২০ টাকা করে এবং সিটি, ইসলামী ও প্রিমিয়ার ব্যাংকের শেয়ার দর ০.১০ টাকা করে কমেছে। এদিন লেনদেন শেষে শেয়ার দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৮টি ব্যাংকের। ব্যাংকগুলো হলো : এবি, এক্সিম, আইএফআইসি, মার্কেন্টাইল, এনসিসি, ওয়ান, পূবালী ও শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক।