২৩ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এক যুগেও স্বয়ংক্রিয় লেনদেন চালু হয়নি চট্টগ্রাম কাস্টমসে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ২০০৮ সালে অনলাইন সিস্টেম চালু হয় চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে। কিন্তু প্রায় এক যুগেও পুরোপুরি কার্যকর হয়নি স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতি। তাছাড়া ই-পেমেন্ট সিস্টেম চালু না হওয়ায় এখনও প্রতিদিন পুরনো নিয়মেই পরিশোধ করতে হচ্ছে প্রায় একশো কোটি টাকার শুল্ক। যাতে সময়ের অপচয় ছাড়াও বাড়ছে বাণিজ্য জটিলতা।

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে এ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড নামের যে সফটওয়্যারের মাধ্যমে অনলাইন সিস্টেম চালু রয়েছে তাতে ২৮টি মডিউল থাকার কথা। তবে বাস্তবে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে কার্যক্রম হচ্ছে ২৪টি খাতে। বাকি ৪টির কাজ চলছে ম্যানুয়েলি।

সব প্রক্রিয়া এখনও অনলাইনের আওতায় না আসায় সামগ্রিক কাজের গতি কমছে। যার অন্যতম ই-পেমেন্ট ব্যবস্থা। সিএ্যান্ডএফের সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন বাচ্চু বলছেন, প্রতিদিন গড়ে প্রায় ১শ’ কোটি টাকা রাজস্ব জমা দিতে হয়। সনাতন নিয়মে যা করতে গিয়ে সময়ের বিপুল অপচয় হচ্ছে। থাকছে নিরাপত্তা ঝুঁকি। বর্তমানে সোনালী ব্যাংকের কাস্টমস শাখায় নগদ টাকা নিয়ে যেতে হয়। সেখানেও থাকে নানা কাজ। ব্যবসায়ীরা বলছেন, অনলাইন সিস্টেমে অফিসে থেকেই ব্যাংক এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে শুল্ক পরিশোধের সুযোগ থাকলে সুফল মিলবে বেশি। কাস্টমস কমিশনার বলছেন, সিস্টেম আপডেট করা হয়েছে। যাতে সংযুক্ত করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোকে। এনবিআরের অনুমতি পেলেই শুরু হবে ই-পেমেন্ট সিস্টেম। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, মডিউল তৈরির পর ১ লাখ টাকা পর্যন্ত ই-পেমেন্টের ঐচ্ছিক ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। তবে আনুষ্ঠানিকতা আর বাধ্যবাধকতার অভাবে কার্যকর হচ্ছে না এই ব্যবস্থাটি।

নির্বাচিত সংবাদ