২২ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাশিয়ার এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্রের আরো দু'টি চালান নিল তুরস্ক

রাশিয়ার এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্রের আরো দু'টি চালান নিল তুরস্ক

অনলাইন ডেস্ক ॥ যুক্তরাষ্ট্র যখন বার বার তুরস্ককে নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দিচ্ছে তখন আঙ্কারা সরকার রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার একের পর এক চালান গ্রহণ করছে। ‘এস-৪০০’র প্রথম ও দ্বিতীয় চালান শেষে আরও দু’টি চালান রাশিয়া থেকে কার্গো প্লেনে করে তুরস্কে পৌঁছেছে। এরইমধ্যে তুরস্ক কর্তৃপক্ষ তা গ্রহণও করেছে। ১২ জুলাই প্রথম চালান গ্রহণ করার পর এ পর্যন্ত রাশিয়ার নয়টি প্লেন ‘এস-৪০০’ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার উপাদান নিয়ে তুরস্কে অবতরণ করে।

তুরস্কের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে সোমবার এ তথ্য জানায় বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

রাশিয়া আগেই জানিয়েছিল, চলতি বছরের জুলাই মাসের মধ্যেই তারা তুরস্কের কাছে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হস্তান্তর করবে।

এদিকে, রুশ এ ব্যবস্থা কেনার সিদ্ধান্ত নেয়ায় মার্কিন সরকার আঙ্কারা সরকারের ওপর বেশ ক্ষুব্ধ হয়েছে। তবে তুরস্ক বলেছিল, যেকোনো কিছুর মোকাবিলায় তারা এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনবেই। প্রয়োজন হলে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা মোকাবেলা করতেও প্রস্তুত রয়েছে তুরস্ক বলে জানিয়েছে দেশটির সরকার।

উল্লেখ্য, এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনা নিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মধ্যে টানাপোড়েন সৃষ্টি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, তুরস্ক এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ক্রয় করলে তারা দেশটির কাছে এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান বিক্রি করবে না।

তুরস্ক একই সঙ্গে রুশ এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র এবং মার্কিন এফ-৩৫ জঙ্গি বিমান রাখতে পারে না বলে যুক্তরাষ্ট্র এর আগে দেশটিকে সতর্ক করেছিল। তুরস্ক এবং যুক্তরাষ্ট্র উভয়ই নেটো সামরিক জোটভুক্ত দেশ। কিন্তু রাশিয়ার সঙ্গেও তুরস্ক ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তুলছে। যুক্তরাষ্ট্রের ১০০টি এফ-৩৫ জঙ্গি বিমান কেনার জন্য তুরস্ক এর আগে চুক্তি করেছিল। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা কর্মকর্তারা বলছেন, এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা ওই অঞ্চলে নেটোর আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হবে না।