১৯ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিএসইসি চেয়ারম্যানের পদত্যাগের দাবি

বিএসইসি চেয়ারম্যানের পদত্যাগের দাবি

অনলাইন রিপোর্টার্ ॥ দেশের পুঁজিবাজার অব্যাহত ভাবে দরপতন হচ্ছে। পুঁজিবাজারকে ইতিবাচক ধারায় ফেরাতে ইতিমধ্যে নানাবিধ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে কিন্তু তার কোন প্রভাবই দৃশ্যমান হচ্ছে না। ধীরে ধীরে পুঁজি হারিয়ে পথে বসার উপক্রম হচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা। ক্ষোভ আর পুঁজি হারানোর প্রতিবাদে আবারও মতিঝিলের রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।

এদিকে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সূচক কমে আড়াই বছর আগের অবস্থানে নেমে গেছে। এদিকে টানা পতনের কারণে ডিএসইর সামনে বিক্ষোভ করছে বিনিয়োগকারীরা। এসময় বিক্ষোভ থেকে অবিলম্বে বিএসইসির চেয়ারম্যানের পদত্যাগ দাবী করেন বিনিয়োগকারীরা।

গতকাল সোমবার (১৫ জুলাই) লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৮৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৯১ পয়েন্টে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচকটি ৩৪ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৮১৮ পয়েন্টে নেমে গেছে। আর শরীয়াহ সূচক ২৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৬৬ পয়েন্টে। এর মাধ্যমে শেয়ারবাজারে টানা সাত কার্যদিবস দরপতন হলো।

অব্যাহত দরপতনের প্রতিবাদে কয়েকদিন ধরেই ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে বিক্ষোভ করছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। তবে গতকাল (সোমবার) দুপুরে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক প্রায় একশ’ পয়েন্টে পড়ে গেলে আতঙ্কিত বিনিয়োগকারীরা ডিএসইর থেকে বের হয়ে মতিঝিলের রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

বিক্ষোভ মিছিল থেকে তারা পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এবং ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেন। বিক্ষুব্ধ বিনিয়োগকারীরা বিএসইসির চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেন। তারা বলেন, খায়রুল তুই রাজাকার, এই মুহূর্তে বাংলা ছাড়। ডিএসইর উদ্দেশ্যে তারা বলেন ডিএসইর গদিতে আগুন জ্বালো এক সাথে।

তবে আজ মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের উত্থানে শেষ হয়েছে লেনদেন। এই দিন লেনদেনের শুরুতে উত্থান-পতন থাকলেও পৌনে ২ ঘন্টা পর ক্রয় প্রেসারে টানা বাড়তে থাকে সূচক। এরই ধারাবাহিকতায় টানা ৭ কার্যদিবস পতনের পর উত্থানে ফিরেছে বাজার। মঙ্গলবার লেনদেন শেষে সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। তবে টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমেছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৭১ কোটি ৭৬ লাখ ১৬ হাজার টাকা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৩২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫১২৪ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১১৭৫ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ১০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৮২৯ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৫২টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ২২২টির, কমেছে ৯৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৬টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ২৭১ কোটি ৭৬ লাখ ১৬ হাজার টাকা।

এদিকে দিন শেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ৪৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৯ হাজার ৫৩৭ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৬৮টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৫২টির, কমেছে ৮৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টির। আর দিন শেষে লেনদেন হয়েছে ১৬ কোটি ৪৪ লাখ ৬ হাজার টাকা।