২৩ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আদালতে জাজের খাসকামরায়ও মানুষের নিরাপত্তা নেই : সেলিমা

আদালতে জাজের খাসকামরায়ও মানুষের নিরাপত্তা নেই : সেলিমা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সরকারের ব্যর্থতার কারনেই দেশে খুন-গুম বাড়ছে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান। তিনি বলেন, কুমিল্লার আদালতে হত্যাকান্ডের ঘটনা নজিরবিহীন। আদালতে জাজের খাসকামরায়ও মানুষের নিরাপত্তা নেই। মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ‘জাতীয়তাবাদী নবীন দল’ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সেলিমা রহমান আরও অভিযোগ করেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জামিনে সরকার হস্তক্ষেপ করছে। কারণ, তারা জানে তিনি মুক্তি পেলে জনতার যে ঢল নামবে এবং তাদের সিংহাসন এক মিনিটে তলিয়ে যাবে জনতার গণবিস্ফোরণে। সারাদেশে জনগনের প্রতিধ্বনি উচ্চারিত হচ্ছে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে।

সেলিমা রহমান বলেন, আমরা দলকে সংগঠিত করছি আন্দোলনের জন্য। আন্দোলনের মধ্য দিয়েই বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে জেল থেকে মুক্ত করা হবে। তিনি বলেন, যখনই আমরা আন্দোলনের কথা বলি তখনই এই সরকারের টনক নড়ে। যার কারণে এ সরকারের মন্ত্রীরা আবোলতাবোল কথা বলতে থাকে। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি সাংবিধানিক অধিকার। তাই সরকার তাঁকে মুক্তি না দিলে তাঁকে মুক্ত করার জন্য প্রয়োজনে গণবিস্ফোরণ ঘটানো হবে।

সেলিমা রহমান বলেন, ঘর থেকে বের হলেই খুন হওয়ার আশঙ্কা, ধর্ষিত হওয়ার আশঙ্কা। সারা দেশের কোথাও আজ মানুষের নিরাপত্তা নেই। সড়কে নৈরাজ্য, বিভিন্ন জায়গায় খুন, খেলতে গিয়ে হত্যাসহ ধর্ষন ও নারী-শিশু নির্যাতনের ঘটনা প্রতিদিনই ঘটছে। আমরা দেখতে পাচ্ছি আদালতে জাজের যে খাসকামরা, সেখানেও মানুষের নিরাপত্তা নেই। আদালতে বিচারের কামরায় একজন আসামী আরেকজন আসামীকে মেরে ফেলছে। যে দেশে আদালতের খাস কামরায় বিচারকের সামনে আসামির হাতে আসামি খুন হয় সেই দেশে কিভাবে নিরাপত্তা থাকতে পারে। এই অবস্থা কেনো? বরগুনায় নয়নবন্ডদের কারা বানিয়েছে, কাদের ছত্রছায়ায় এরা বেড়ে উঠেছে? দেশের মানুষ সবই জানে।

সেলিমা বলেন, বর্তমান সরকার আইনশৃংখলা রক্ষায় সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ, যেন মানুষ বাঁচানোর দায় তাদের নেই। সরকারের এই ব্যর্থতার কারণ হচ্ছে তারা পুলিশকে ঠেলে দিয়েছে লোভ-লালসা-দুর্নীতির দিকে। দেশের জনগনের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ এখন কাজ করছে না। সেরিশা রহমান বলেন, আজকে আমাদের একেকজনকে লাঠিয়াল হয়ে, হাতিয়ার হয়ে, ঢাল হয়ে বাঁচাতে হবে। জিয়াউর রহমান বিএনপি গঠন করে ছিলেন জনগনের পাশে থেকে তাদের কল্যাণে জন্য, গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করতে।

সেলিমা রহমান বলেন, দেশে উন্নয়নের নামে মহাযজ্ঞ শুরু হয়েছে। একেকটা উন্নয়নের মহাযজ্ঞ জনগনের বুকের মধ্যে একেকটা পেরেগ মারছে।

সেলিমা রহমান বলেন, সরকারের তথ্যমন্ত্রী বলেছেন বিএনপি নাকি ডিজিটাল বোঝেনা। আমি বলবো- বিএনপি ওই ডিজিটাল বুঝে না যে ডিজিটালে শেয়ারবাজার ও ব্যাংক লুটপাট হয়, যে ডিজিটালে শিশু থেকে বয়স্ক মহিলা ধর্ষণের কিংবা খুনের শিকার হয়, যে ডিজিটালে গণতন্ত্র থাকে না এবং দেশের মানুষের ভোটের অধিকার থাকে না।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন আহম্মেদ তালুকদারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা প্রমুখ।