২৪ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পুরান ঢাকায় ধসে পড়া ভবনের ধ্বংসস্তূপ থেকে এক লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পুরান ঢাকার পাটুয়াটুলীতে ধসে পড়া দোতলা ভবনটির ধ্বংসস্তূপ থেকে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার রাত ৮টার দিকে লাশটি উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। দুপুর দেড়টার দিকে ওই ভবন ধসে পড়ার পর সেখানে উদ্ধারকাজ চালান তারা। নিহত ব্যক্তির নাম জাহিদুল ব্যাপারী (৬০)। তার ছেলে এখনও নিখোঁজ রয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক দেবাশীষ বর্ধন বলেন, রাত ৮টার দিকে জাহিদুলের মরদেহ ধ্বংসস্তূপ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে পুরান ঢাকার সদরঘাটের কাছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন সুমনা ক্লিনিক সংলগ্ন ৬ নম্বর গলির একটি দু’তলা বাড়ির দেয়াল ধসে পড়ে। স্থানীয়রা জানান, বাড়িটি বহু পুরনো। প্রায় শতবর্ষ বয়সী পুরনো বাড়িটির দেয়াল চুন আর সুরকি দিয়ে করা। কয়েকদিনের প্রবল বৃষ্টিতে বাড়িটির অনবরত ভেজা অবস্থায় ছিল। শুকানোর কোন সুযোগ ছিল না। আর বহু পুরনো বাড়ির দেয়ালের এখানে সেখানে ছোট ছোট ফাটল ছিল। দেয়াল ভিজে নরম হওয়ার কারণে সেটি বুধবার দুপুরে আচমকা ধসে পড়ে। দেয়ালের পাশেই বসে পিতা ও তার এক ছেলে কাজ করছিলেন। দেয়াল ধসের পর থেকেই তাদের আর পাওয়া যায়নি। রাতে আটটার দিকে জাহিদুলের লাশ পেলেও পুত্র রাত ১২টা পর্যন্ত নিখোঁজ ছিল।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ডিউটি অফিসার এরশাদ হোসেন জনকণ্ঠকে বলেন, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার সার্ভিসের একটি উদ্ধারকারী দল সেখানে পৌঁছে। তারা সেখানে অভিযান চালায়। রাত আটটার দিকে জাহিদুলের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। দেবাশীষ বলেন, নিহত জাহিদুলের ছেলে শফিকুল ব্যাপারী (১৮) ভেতরে আছেন বলে স্বজনরা বলছেন। পুত্রের খোঁজ না পাওয়ায় বুধবার সারারাত সেখানে অভিযান চালানো হতে পারে। প্রয়োজনে অভিযানের সময় আরও বাড়তেও পারে।

অন্তত ১৫ থেকে ২০ ফুট সেই চুন সুরকির দেয়ালটি রীতিমতো ধসে পড়ে মাটির সঙ্গে চ্যাপ্টা হয়ে আছে। ইটের দেয়াল একদিকে ধরে উঁচু করলে সঙ্গে থাকা ইটসহ অন্যান্য মালামালসহ অনেক উঁচু হয়। নিচে দেখা যায়। কিন্তু চুন সুরকির দেয়ালে সেটি হয় না। কারণ যেখান দিয়েই শাবল চালানো হয়- পুরনো দেয়ালের ট্যাম্পার না থাকার কারণে শুধু সেই টুকুই ভেঙ্গে যায়।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া