১৯ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিশুর ছিন্ন মাথা নিয়ে পালানোর সময় গণপিটুনিতে যুবক নিহত

  • কল্লাকাটা আতঙ্ক

নিজস্ব সংবাদদাতা, নেত্রকোনা, ১৮ জুলাই ॥ ব্যাগে করে শিশুর ছিন্ন মাথা নিয়ে পালানোর সময় যুবককে (২৮) পিটিয়ে হত্যা করেছে উত্তেজিত জনতা। বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের নিউটাউন এলাকার অনন্তপুকুর পাড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শিশুটির নাম সজীব মিয়া (৮)। সে শহরের পূর্ব কাটলী এলাকার রিক্সাচালক রইছ উদ্দিনের ছেলে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গণপিটুনিতে নিহত যুবকের পরিচয় পাওয়া যায়নি। এ ঘটনার পর সারা জেলায় ‘কল্লাকাটা আতঙ্ক’ ছড়িয়ে পড়েছে।

নেত্রকোনা মডেল থানার পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে এক যুবক হাতে একটি ব্যাগ নিয়ে বারহাট্টা রোডের পাশে সুইপার কলোনিতে মদ খেতে যায়। এ সময় ব্যাগে রক্ত দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। পরে তারা ব্যাগটি দেখতে চাইলে ওই যুবক দৌড়ে পালাবার চেষ্টা করে। তখন স্থানীয়রা তাকে আটক করে ব্যাগ তল্লাশি করে তার মধ্যে এক শিশুর ছিন্ন মাথা দেখতে পায়। পরে উত্তেজিত জনতা জড়ো হয়ে তাকে এলোপাতাড়ি পিটুনি দেয়। গণপিটুনির এক পর্যায়ে সে মারা যায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই যুবকের লাশ এবং শিশুর ছিন্ন মাথাটি উদ্ধার করে। পরে সজীবের স্বজনরা হাসপাতালে গিয়ে ছিন্ন মাথাটি সজীবের বলে শনাক্ত করে। সজীবের স্বজনরা জানায়, বেলা সোয়া ১১টার দিকে সে তার বাবার কাছ থেকে পাঁচ টাকা নিয়ে স্থানীয় একটি দোকান থেকে খাওয়ার জিনিস কিনতে যায়। এর পর থেকে তাকে পাওয়া যাচ্ছিল না।

এদিকে বিকেল তিনটার দিকে কাটলী এলাকার একটি নির্মাণাধীন বিল্ডিংয়ের তিন তলার ছাদে সজীবের দেহের বাকি অংশ পাওয়া যায়। খবর পেয়ে পুলিশ সেটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। বিকেল চারটায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গণপিটুনিতে নিহত যুবকের পরিচয় পাওয়া যায়নি। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) শাহজাহান মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ‘আমরা ফিঙ্গার প্রিন্ট পরীক্ষা করে নিহত যুবকের পরিচয় শনাক্ত করার চেষ্টা করছি।’

এদিকে এ ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়ায় সারা জেলায় ‘কল্লাকাটা আতঙ্ক’ ছড়িয়ে পড়েছে। ঘটনার পরপরই অভিভাবকরা বিভিন্ন স্কুলে গিয়ে ভিড় করে। অনেকে তাদের সন্তানদের বাড়িতে নিয়ে যায়।