২৪ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দেশে প্রথম সফল এ্যালোজেনিক বোনম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ চিকিৎসা ক্ষেত্রে আরেকটি মাইলফলক গড়লেন বাংলাদেশের চিকিৎসকরা। প্রথমবারের মতো দেশে স্ট্যান্ডার্ড ও সম্পূর্ণ বোনম্যারো ও মাইলো-এবলেটিভ চিকিৎসা পদ্ধতির মাধ্যমে এ্যালোজেনিক বোনম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট (বিএমটি) সফলভাবে সম্পন্ন করেছেন তারা। খবর অনলাইনের।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের হেমাটোলজি বিভাগের বোনম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট ইউনিটের অধ্যাপক ডাঃ এম এ খান স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ৩ জুলাই সকাল ১০টায় ঢামেক হাসপাতালে নার্গিস সুলতানা (২৯) নামে এক রোগীর চিকিৎসা সম্পন্ন হয়েছে। তাকে তার ছোট ভাই ২৬ বছর বয়সী মাহিন শেখের শরীর থেকে স্টেম সেল সংগ্রহ করে সফলভাবে প্রতিস্থাপন করা হয়। বর্তমানে নার্গিস সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। হেমাটোলজি ও বিএমটি বিভাগের এই অধ্যাপক বোনম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্টি সম্পন্ন করেছেন। নার্গিস দুরারোগ্য ব্লাড ক্যান্সারে (হাই রিস্ক একিউট লিম্ফোব্লাস্টিক লিউকেমিয়া) ভুগছিলেন। নার্গিস একজন গৃহিণী ও রাজবাড়ীর খোলাবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা। তার স্বামী ও দুই মেয়ে রয়েছে। নার্গিসের স্বামী সামান্য মুদির দোকানদার। তার পক্ষে নার্গিসের চিকিৎসা ব্যয় বহন করা সম্ভব ছিল না। এ অবস্থায় আকিজ ফাউন্ডেশন তাকে আর্থিক সহায়তার জন্য এগিয়ে আসে। ঢামেক হাসপাতালে ২০১৪ সালের মার্চ থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত ৪২ রোগীর শরীরে সফলভাবে বোনম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট করা হয়েছে। কিন্তু এ্যালোজেনিক বিএমটি দেশে এই প্রথমবারের মতো হয়েছে।